**TRY FREE HUMAN READABLE ARTICLE SPINNER/ARTICLE REWRITER**

ঝলমলে ও রেশমী চুল পেতে করণীয়


বিভিন্ন কারণে আমাদের চুল তৈলাক্ত বা রুক্ষ হয়ে যেতে পারে। কিন্তু তা আমাদের জন্য অস্বস্তিদায়ক তো বটেই, সৌন্দর্যের ক্ষেত্রেও হানিকর। তাই ঝলমলে সুন্দর রেশমী চুলের আকাঙ্ক্ষা থাকে সবারই। চলুন তবে জেনে নিই, ঝলমলে ও রেশমী চুল পেতে হলে কী করতে হবে-

তৈলাক্ত চুল সারাক্ষণই চটচটে হয়ে থাকে। ভেজা ভাব থাকে, ফলে খুব দ্রুত খুশকি ও ময়লা জমে। এ চুল সপ্তাহে অন্তত তিনদিন খুব ভালো শ্যাম্পু দিয়ে ঠাণ্ডা পানিতে ধুয়ে নিতে হবে। খুব বেশি ম্যাসাজ বা তেল দেয়া যাবে না। অনেকক্ষণ চিরুনি দিয়ে আঁচড়াবেন না। এতে আরো বেশি তেল বের হবে। শ্যাম্পু শেষে সাধারণ কন্ডিশনার ব্যবহার করতে পারেন। তারপর এক মগ পানিতে চার টেবিল চামচ লেবুর রস মিলিয়ে ধুয়ে ফেলবেন।

অনেকের চুল মিশ্র প্রকৃতির হয়। এ চুলের গোড়া চটচটে থাকে, কিন্তু উপরিভাগ রুক্ষ প্রকৃতির হয়। মিশ্র চুলে সপ্তাহে অন্তত তিনদিন শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার ব্যবহার করতে হবে। শ্যাম্পুর আগে কুসুম গরম তেলে লেবুর রস মিশিয়ে হালকা ম্যাসাজ করে নেবেন। পানিতে গ্লিসারিন মিশিয়েও ম্যাসাজ করতে পারেন।

আজকাল রুক্ষ চুলও খুব বেশি দেখা যায়। ধুলাবালি, রোদের ক্ষতিকর প্রভাবে চুল রুক্ষ হতে পারে। রুক্ষ চুলে কোনো চকচকে ভাব থাকে না, চুলের আগা ফাটা হয়। এ চুল অন্তত তিনদিন খুব ভালো ম্যাসাজ করতে হবে তেল দিয়ে। ময়েশ্চারসমৃদ্ধ শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে ও ডিপ কন্ডিশনিং করা চাই। শ্যাম্পুর আগে তেলের বদলে ঘৃতকুমারীর (অ্যালোভেরা) শাঁস বা দুধ ও মধুর মিশ্রণ দিয়েও ম্যাসাজ করা যায়। শ্যাম্পু শেষে এক মগ পানিতে দুই টেবিল চামচ লেবুর রস ও চার টেবিল চামচ মধু মিলিয়ে চুল ধুতে পারেন।

যাদের চুল স্বাভাবিক, তাদের চুল নিয়ে খুব কমই ভাবতে হয়। তাদের চুল স্বাভাবিকভাবেই রেশমি হয়। তারা সপ্তাহে একদিন শ্যাম্পু করলেও চলে। মাঝেমধ্যে রিঠা, শিকাকাই ও আমলকী ভেজানো পানি চুলে ম্যাসাজ করতে পারেন।
সূত্র : জাগোনিউজ২৪

Post a Comment