বিশ্বের বৃহত্তম 'কবরখানা' হবে ফেসবুক!


সোশাল নেটওয়ার্কিং সাইট 'ফেসবুক' এই শতব্দীর শেষে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভার্চ্যুয়াল ‘কবরখানা’ হবে। কারণ মৃত মানুষের অ্যাকাউন্ট কখনো ডিলিট হয় না। উল্টো জন্মদিনেও আসতে থাকে মেসেজ অ্যালার্ট। ফলে ২০৯৮ সালে ফেসবুকে জীবিত মানুষের চেয়ে মৃত মানুষের অ্যাকাউন্ট সংখ্যা বেশি থাকবে।

ম্যাসাচুসেটস বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যাবিদ হাসেম সিদ্দিকিকে উদ্ধৃত করে ডেইলি মেল সংবাদ সংস্থাটি জানিয়েছে, ২০৯৮-এর মধ্যে বিশ্বের সবচেয়ে বড় কবরখানায় রূপান্তরিত হতে চলেছে এই জনপ্রিয় সোশাল নেটওয়ার্কিং সাইটটি। তাদের মতে, ২০৯৮ সালে ফেসবুকে জীবিত মানুষের চেয়ে মৃত মানুষের অ্যাকাউন্ট সংখ্যা বেশি থাকবে।

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের দাবি, ফেসবুকে বর্তমানে ১৫০ কোটিরও বেশি ব্যবহারকারী রয়েছে।  চলতি শতকের শেষের দিকে  জীবিত মানুষের চেয়ে ফেসবুকে মৃত মানুষের প্রোফাইল বেশি থাকবে।

নীতি অনুযায়ীই মৃত ব্যক্তির অ্যাকাউন্ট নিজে থেকে ডিলিট করে না ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। বরং সেটিকে 'মেমোরিয়ালাইজড' করে দেওয়া হয়। প্রফেসর সিদ্দিকির দাবি, আর এইভাবে চলতে থাকলে ধীরে ধীরে সোশাল সাইটিটে ডেড অ্যাকাউন্টের ভিড় উপচে পড়বে।

সংস্থাটির তরফে চেষ্টা চলছে ব্যবহারকারীদের সঙ্গে একটি “উত্তরাধিকার চুক্তি” বা লিগেসি কন্টাক্ট সম্পাদিত করার। যাতে কোনও ব্যবহারকারীর মৃত্যু হলে অ্যাডমিনিস্ট্রেটরের পক্ষ থেকে অ্যাকাউন্টের প্রোফাইল ও কভার ফোটো আপডেট করা সম্ভব হয়। যদিও এ বিষয়ে এখনও ফেসবুক কর্তৃপক্ষের তরফে কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি। 

ব্লগিং কোম্পানি ডিজিটাল বিয়ন্ডের দাবি, এ বছর নয় লাখ ৭০ হাজার ফেসবুক ব্যবহারকারীর মৃত্যু ঘটবে যা ২০১০ সালে ছিল ৩ লাখ ৮৫ হাজার ৯৬৮ ও ২০১২ সালে পাঁচ লাখ ৮০ হাজার।
সূত্র : আমাদের সময়

Post a Comment