পাকিস্তানের বিপক্ষে আরেকটি জয়ের সামনে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ!


পাকিস্তানের বিপক্ষে এ পর্যন্ত খেলা ৯টি আন্তর্জাতিক টি২০ ম্যাচের ২টিতে জিতেছে বাংলাদেশ, ৭টিতে পাকিস্তান। পরিসংখ্যান দেখে পাকিস্তানকে আপাত দৃষ্টিতে কিছুটা শক্তিশালী দল মনে হচ্ছে? তবে জেনে রাখুন, গত প্রায় দু’বছরে পাকিস্তানের বিপক্ষে সর্বশেষ যে দু’টি টি২০ খেলেছে বাংলাদেশ, দু’টিতেই জয়ী দলের নাম কিন্তু বাংলাদেশ। টেস্ট ও ওয়ানডের পাশাপাশি ছোট সংস্করণেও যে টাইগাররা প্রতিপক্ষের আতংকের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে, সেটা এখানেও স্পষ্ট।

ইডেন গার্ডেন্সে ২৫ বছর পর ম্যাচ খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে সুপার টেনেও যাত্রা শুরু মাশরাফিদের। ইডেন গার্ডেন্সে বাংলাদেশের পারফরম্যান্সের প্রসঙ্গ তুললে প্রথমেই আসে ১৯৯০ সালের ৩১শে ডিসেম্বর শ্রীলংকার বিপক্ষে আতাহার আলী খানের অপরাজিত ৯৫ বলে ৭৮ রানের ইনিংস, যেখানে প্রথম বারের মত আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ম্যান অফ দ্য ম্যাচ হয়েছিলেন তিনি। যদিও বাংলাদেশ ম্যাচটি হেরেছিল; কিন্তু আতাহারের ওই কাব্যিক ইনিংসের জন্য স্মরণীয় হয়ে আছে ম্যাচটি। গত ২৫ বছরে ইডেনে বাংলাদেশের কোন ম্যাচ না থাকলেও সাকিব বেশ কয়েকবার খেলেছেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে। সেখানে কোলকাতার হয়ে ভাল পারফর্ম করার পাশাপাশি দর্শকদের ব্যাপক সমর্থনও পেয়েছেন তিনি।

মাত্র দুই সপ্তাহ্ আগে এশিয়া কাপে পাকিস্তানকে হারিয়ে আত্মবিশ্বাসে অটুট থাকলেও টীম কম্বিনেশন নিয়ে কিছুটা সংশয় রয়েছে বাংলাদেশ শিবিরে। এই ম্যাচ দিয়ে ফিরে আসার সম্ভাবনা রয়েছে সদ্য ইএসপিএন-ক্রিকইনফো’র ২০১৫ সালের সেরা অভিষিক্ত খেলোয়ারের পুরষ্কার পাওয়া মুস্তাফিজের। ব্যাথা কিছুটা কম থাকলে ব্যাথানাশক ইনজেকশন নিয়েও দলে ফিরতে পারেন কাটার-মুস্তাফিজ।

তবে বোলিং অ্যাকশনে অভিযুক্ত আরাফাত সানির পরীক্ষার ফলাফল কাল এসে পৌঁছানোর কথা, তাই স্কোয়াডে তার থাকাটা অনিশ্চিত। যদিও পাকিস্তানের বিপক্ষে সর্বশেষ টি২০ তে তিনি নিয়েছিলেন ২টি গুরুত্বপূর্ণ উইকেট। তবে দলের বড় পাওয়া তামিমের দুর্দান্ত ফর্ম আর সাকিবের ছন্দে ফেরা। এখন পর্যন্ত টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান তামিমের আর সর্বোচ্চ উইকেটে যৌথভাবে শীর্ষে সাকিব। তাই সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স আরও একটি জয়ের ইঙ্গিতই দিচ্ছে পাকিস্তানের বিপক্ষে।

অন্যদিকে আফ্রিদির ‘ভারত সমর্থন’ বিতর্ক আর খেলোয়ারদের অফ ফর্মে কিছুটা ব্যাকফুটে থাকলেও দলটির নাম যে ‘আনপ্রেডিক্টেবল পাকিস্তান’! তাই কপিল দেব তার কলামে পাকিস্তানকে নিয়ে সতর্ক থাকতে বলেছেন। পাশাপাশি বাংলাদেশও ভয়ংকর হয়ে উঠতে পারে বলে মত দিয়েছেন তিনি। বাংলাদেশ পারবে তো ভয়-ডরহীন ক্রিকেট খেলে স্বাধীনতার মাসে পাকিস্তানের বিপক্ষে বিজয়ের লাল সূর্য উদিত করে সুপার টেনের শুভ সূচনা করতে?

Source : jagonews24

Post a Comment