সবার সেরা রাইজা নওশিন


১৮০০ ছবি, অনলাইনে ১৮০০টি সুন্দর সাজানো মুখ। সেখান থেকে বিচারকদের রায়ে বেছে নেওয়া হয়েছে সেরা চল্লিশ শৈল্পিক মনের মানুষ, যারা কালার নিয়ে খেলতে ভালবাসেন। কালার নিয়ে নতুন কিছু সৃষ্টি করতে চান, আর ওমেন্স ওয়ার্ল্ড এই মানুষগুলোকে খুঁজে বের করার উদ্দেশ্যে আয়োজন করেছে মেকআপ আর্টিষ্ট প্রতিযোগিতা  এর পর Challenge with Colors. ভোটিং রাউন্ডের মাধ্যমে নির্বাচিত হয় টপ টেন প্রতিযোগী। টপ টেন প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করেন গ্রুমিং সেশনে, যা ফারনাজ আলম- ডিরেক্টর, ওমেন্স ওয়ার্ল্ড এবং কোরিওগ্রাফার আজরা মাহমুদ পরিচালনা করেন। 

অপেক্ষার পালা শেষে, জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে সেরাদের মধ্যে সেরাকে বেছে নিতে ১৯শে মার্চ দি ডেইলি ষ্টারের এ.এস. মাহমুদ হলে আয়োজন করা হয় Challenge with Colors.-এর গ্র্যান্ড ফিনালে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক সাদেকা হালিম, ওমেন্স ওয়ার্ল্ডের পরিচালক ফারনাজ আলম এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক কণা আলম, এনটিভির পরিচালক মাহবুবা সুলতানা লিটা। আর বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হেড অব এনটিভি অনলাইন ফকরুদ্দিন আহমেদ জুয়েল, অভিনেত্রী দীপা খন্দকার ও চলচ্চিত্র নায়ক ইমন। 

অনুষ্ঠানের মূল আকর্ষণ ছিলো দর্শক ও বিচারকদের সামনেই সুনিদির্ষ্ট নিয়মের মাধ্যমে ৫ জন প্রতিযোগী মেকআপ করেন। এই পর্বে উপস্থিত সবাই করতালি দিয়ে প্রতিযোগীদের উৎসাহ যোগান। সবশেষে আসে সেই মহেন্দ্রক্ষণ একে একে সবাই মঞ্চে আসেন প্রতিযোগীরা। সবার মাঝেই বেশ টেনশন কাজ করছিলো তখন আলিজা মালিহা তো বলেই দিলেন, এতো দিনের স্বপ্ন আর দীর্ঘ সাধনার ফলাফলের সামনে  এসে নিজেকে আর ধরে রাখতে পারছি না। ফারনাজ আলম প্রথমে ১ম ও ২য় রানার আপের মালিহা ও লোভার নাম ঘোষণা করলেন। সবশেষে ঘোষণা এলো প্রথম হয়েছেন রাইজা নওশিন।

এসময় কনা আলম অন্য অতিথিদের সঙ্গে স্টেজে এসে বিজয়ীদের হাতে পুরষ্কার তুলে দেন। চ্যাম্পিয়ন প্রতিযোগী পান ওমেন্স ওয়ার্ল্ড এর সৌজন্যে নগদ ১ লক্ষ টাকা, ওমেন্স ওয়ার্ল্ড এর ১ বছরের ফুল ফ্রি স্কলারশিপ, ওমেন্স ওয়ার্ল্ড এর শ্যুট ও শো তে অংশ গ্রহণের সুযোগ ও গিফট হ্যাম্পার। ১ম ও ২য় রানার আপ প্রতিযোগী পান গিফট হ্যাম্পার ও গিফট ভাউচার। টপ ফাইভ প্রতিযোগীকে ফাইনালিষ্ট হিসেবে সার্টিফিকেট ও গিফট হ্যাম্পার দেয়া হয়। 

ওমেন্স ওয়ার্ল্ড এর ম্যানেজিং ডাইরেক্টর কনা আলম বলেন, অনেকদিন ধরেই তার মনে এমন একটি প্রতিযোগিতা আয়োজনের ইচ্ছা ছিল। কারণ এমন আয়োজনের মাধ্যমে নারীদের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ ও স্বীকৃতি মিলবে এবং তারা আত্মপ্রত্যয়ী হয়ে সুন্দর জীবন গড়তে পারবে। 

তিনি এই ধরনের প্রতিযোগীতা ভবিষ্যতেও নিয়মিতভাবে আয়োজনের ঘোষণা দেন।
সূত্র : বাংলানিউজ২৪

Post a Comment