পাকিস্তানে বোমা হামলা, ভুলের ক্ষমাপ্রার্থী ফেইসবুক


‘সেইফটি চেক’ ফিচারের একটি ত্রুটির জন্য সোমবার ক্ষমা চেয়েছে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক।

লাহোরের একটি পাবলিক পার্কে শক্তিশালী বোমা বিস্ফোরণে অন্তত ৬৯ জন নিহত এবং আড়াইশো’রও বেশি মানুষ আহত হওয়ার পর লাহোরের মানুষের জন্য ফেইসবুক ‘সেইফটি চেক’ ফিচার চালু করে।

যে কোনো ধরনের দূর্যোগে আক্রান্ত এলাকার মানুষের জন্য ফেইসবুক সেইফটি চেক ফিচারটি চালু করে থাকে, যার মাধ্যমে বন্ধু এবং পরিবার তাদের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে পারে। কিন্তু লাহোরের মানুষের জন্য চালু করা সেইফটি চেক লাহোরের বাইরে, এমনকি পাকিস্তানেরও বাইরে অনেক দেশের মানুষের জন্য চালু হয়ে যায়, জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদ সংস্থা ইন্দো-এশিয়ান নিউজ সার্ভিস।

‘সেইফটি চেক’ সম্পর্কে ফেইসবুক প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ এক স্ট্যাটাসে বলেন, “পাকিস্তানের লাহোরে একটি পার্কে বোমা হামলার পর আমরা আজ সকালে সেখানকার মানুষের জন্য সেইফটি চেক চালু করি। গত দু’মাস ধরেই বেশ কয়েকবার আমরা তুরস্ক এবং বেলজিয়ামসহ বিভিন্ন স্থানে সন্ত্রাসী হামলার জন্য সেইফটি চেক চালু করে আসছি, যাতে সেখানকার মানুষ তাদের পরিবার এবং প্রিয়জনদের জানাতে পারে যে তারা নিরাপদে আছে।”

ফেইসবুকের একজন মুখপাত্র এক বিবৃতিতে বলেন, “বোমা হামলার পর আমরা পাকিস্তানের লাহোরে সেইফটি চেক চালু করি। দুর্ভাগ্যক্রমে এই দূর্যোগে আক্রান্ত নয়, এমন অনেক মানুষই সেইফটি চেক-এর নোটিফিকেশন পেয়েছে। আমরা বিষয়টির সমাধানের জন্য কাজ করেছি এবং যারা ভুলক্রমে নোটিফিকেশন পেয়েছেন, তাদের সবার কাছে আমরা ক্ষমাপ্রার্থী।”

ফেইসবুকের ডিজ্যাস্টার রেসপন্স টিম-এর পোস্টে বলা হয়, “এই ধরনের ত্রুটি ফেইসবুকের উদ্দেশ্যের পরিপন্থী।”

ফেইসবুক ‘সেইফটি চেক’ ফিচারটি সর্বপ্রথম চালু করেছিল ২০১৪ সালে। প্রথমে কেবল প্রাকৃতিক দূর্যোগের জন্য চালু করলেও ৪ মাস আগে প্যারিসে সন্ত্রাসী হামলা হলে প্রথম এই ফিচারটি মানবসৃষ্ট দুর্যোগের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়। সেইফটি চেক -এ ব্যবহারকারীরা ‘সেইফ’, ‘আনসেইফ’ বা ‘নট ইন দ্য এরিয়া’ এই অপশনগুলো ব্যবহার করতে পারেন। আর এই পোস্টগুলো ফেইসবুক বন্ধুরা নিউজ ফিডে দেখতে পান।
সূত্র : বিডিনিউজ২৪

Post a Comment