অফিস না করেও মাসে ১৬ লাখ টাকা বেতন!


আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা প্রতিষ্ঠান, বাংলাদেশের (আইসিডিডিআর,বি) এক শীর্ষ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কর্মস্থলে উপস্থিত না থেকেও প্রতিমাসে ১৬ লাখ ৭০ হাজারেরও বেশি টাকা বেতন উত্তোলনের গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। সৌভাগ্যবান এই কর্মকর্তা হলেন আইসিডিডিআরবির মানবসম্পদ বিভাগের পরিচালক ক্রিস্টিন ডেনহি। 

গত দুইমাসেরও বেশি সময় যাবৎ আয়ারল্যান্ডে অবস্থান করলেও তিনি নিয়মিত বেতনভাতা ও অন্যান্য সুবিধাদি ভোগ করছেন। গত জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারিতে তিনি প্রতিমাসে ২১ হাজার ৩শ ২৯ দশমিক ১৮ ডলার (টাকার হিসেবে ১৬ লাখ ৭০ হাজারের বেশি) করে বেতন উত্তোলন করেছেন।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায়, গত ১৬ ডিসেম্বর তিনি বাংলাদেশ ছেড়ে আয়ারল্যান্ডে চলে যান। এরপর এখনো পর্যন্ত দাফতরিকভাবে কোনো ছুটির আবেদন জমা দেননি তিনি। এমনকি অসুস্থতার কথা জানিয়েও (মেডিকেল লিভ) কোনো কাগজপত্র বা আবেদন করেননি।

আইসিডিডিআর,বির প্রচলিত স্টাফ রুল অনুসারে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বাড়িতে বসে অফিস করার নিয়ম না থাকলেও অফিস না করেও নিয়মিত বেতনভাতা পাচ্ছেন এই নারী। মানবসম্পদ পরিচালকের মতো গুরত্বপূর্ণ পদে দুইমাসেরও বেশি সময় কর্মকর্তা না থাকায় জনবল নিয়োগ, চুক্তিভিত্তিক কর্মকর্তাদের চাকরির মেয়াদ বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন কার্যক্রম চরমভাবে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।  

আইসিডিডিআর,বি কর্তৃপক্ষ অবশ্য ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সঠিক নয় দাবি করে বলছে, যথাযথ নিয়মকানুন মেনে ক্রিস্টিন ডেনহি ছুটিতে আছেন। তিনি অসুস্থতাজনিত ছুটি চেয়ে আবেদনও করেছেন। 

তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে আইসিডিডিআর,বির একাধিক কর্মকর্তা জানান, তিনি ছুটির আবেদনপত্রে একজন চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশনে স্ট্রেসজনিত সমস্যায় ভুগছেন বলে জানিয়েছেন। তবে সেখানে চিকিৎসক তাকে বিশ্রামে থাকতে হবে এমন কোনো পরামর্শ দেননি। 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ৬ ডিসেম্বর আইসিডিডিআর,বির কর্মী মঙ্গল সংস্থার সভাপতি ডা. আযহারুল ইসলাম খান এবং সাধারণ সম্পাদক ড. ফিরোজ আহমেদ ক্রিস্টিন ডেনহির নিয়োগের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে বাদী হয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন।

রিটে বলা হয়, ২০১৪ সালের ২৮ আগস্ট ক্রিস্টিন ডেনহিকে নিয়োগ দেয়া হয়। কিন্তু তার নিয়োগ নীতিমালা অনুয়ায়ী হয়নি। নীতিমালা অনুসারে নিয়োগের বয়সসীমা ১৮ থেকে ৫৮। কিন্তু ডেনহি নিয়োগ পেয়েছেন ৫৯ বছর বয়সে। এছাড়াও এ পদের জন্য ক্রিস্টিন ডেনহির শিক্ষাগত যোগ্যতা ছিল না। এ পদের জন্য মাস্টার্স ডিগ্রি প্রয়োজন। কিন্তু ডেনহির রয়েছে মাত্র ডিপ্লোমা সনদ। তাই তাকে এ পদে নিয়োগ দেয়া অবৈধ বলে রিট আবেদনে বলা হয়।

আইসিডিডিআর,বির মানবসম্পদ পরিচালক পদে ক্রিস্টিন ডেনহি কোন ক্ষমতাবলে বহাল আছেন এবং একইসঙ্গে তাকে ওই পদ ছেড়ে দিতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে গেল বছেরের ১৩ ডিসেম্বর হাইকোর্টের বিচারপতি মঈনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি আশরাফুল কামালের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ একটি রুল জারি করেন। রুল জারির পর ১৬ ডিসেম্বর তিনি আয়ারল্যান্ড চলে যান। 

তবে আইসিডিডিআর,বি নীতিনির্ধারকরা বলছেন ভিন্ন কথা। জাগো নিউজের এ প্রতিবেদক আইসিডিডিআর,বির জনসংযোগ অফিসের সঙ্গে ই-মেইলে যোগাযোগ করে ক্রিস্টিন ডেনহির ব্যাপারে কিছু প্রশ্নের উত্তর জানতে চাইলে মিডিয়া ম্যানেজার এ কে এম তারিকুল ইসলাম খান জানান, ক্রিস্টিন বর্তমানে যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে অনুমোদিত ছুটি নিয়েছেন। তার অবর্তমানে মানবসম্পদ বিভাগের সামগ্রিক দায়দায়িত্ব তার লাইন ডিরেক্টরকে দেয়া হয়েছে। 

তিনি জানান, আইসিডিডিআর,বিতে কোনো কর্মকর্তার চাকরির মেয়াদ এক বছর অতিক্রান্ত হলেই ওই কর্মকর্তা ছয়মাসের পূর্ণ বেতনসহ অসুস্থাজনিত ছুটি পাবেন।  

এছাড়া অসুখ-বিসুখ হলে তিনি এক বছর পূর্ণ বেতনে ছুটি পাবেন। তবে প্রতি চার বছরে অসুস্থতাজনিত ছুটি নয়মাসের বেশি নেয়া যাবে না বলেও জানান তিনি। 
সূত্র : জাগোনিউজ২৪

Post a Comment