জেনে রাখুন কফি পানের উপযুক্ত সময়


কফি প্রেমীদের জন্য এটি দুঃসংবাদও হতে পারে। কারণ যখন-তখন হাতে এককাপ গরম কফির মগ নিয়ে যাদের বসে যাওয়ার অভ্যাস, তারা হয়তো জানেনও না যে কফি পানেরও কিছু উপযুক্ত সময় রয়েছে। সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, ক্যাফেইন আপনার দেহঘড়ির ওপর প্রভাব ফেলে।

অভ্যন্তরীণ দেহঘড়ি বা ‘সার্কুলেশন ক্লক’ মানবদেহের প্রত্যেকটি কার্যকলাপকে প্রভাবিত করে। অভ্যন্তরীণ স্বাভাবিক কাজে ব্যাঘাত ঘটলে এর বিরূপ প্রভাব পড়ে মানবদেহে। এক কথায় বলা যায়, এই সার্কুলেশন ঘড়িই আপনার শরীরের সবকিছু।

কফি পানের উপযুক্ত সময় নির্ণয়ের জন্য গবেষকরা ৪৯ দিনের এক গবেষণা চালায়। ঘুমাতে যাওয়ার তিন ঘণ্টা আগে এদের ওপর বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা চালানো হয়। এদেরকে কখনো প্রখর আলোতে আবার কখনো কম আলোতে রেখে এক্সপ্রেসো কিংবা প্লেসবো পান করতে দেয়া হয়।

এরপর অংশগ্রহণকারীদের লালা পরীক্ষা করে দেখা হয়। ঘুম এবং জেগে ওঠা সম্পর্কিত লালা মেলাটোনিন পরীক্ষা করে দেখা যায়, যারা দ্বিগুণ এক্সপ্রেসো পান করেছে তাদের গড়ে ৪০ মিনিট পর ঘুম এসেছে। সবচেয়ে ভয়াবহ তথ্য হচ্ছে, ক্রমাগত এভাবে ঘুমের ব্যাঘাতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হয়ে পড়ছে।

এখন আপনি যদি মনে করেন যে, আমি তো রাতে কফি পান করি না, সকালে করি। তাহলে আপনার জন্য আরো বিস্ময়কর খবর অপেক্ষা করছে। সকালে কফি পানে বেড়ে যায় ‘স্ট্রেস হরমোন’। এই স্ট্রেস হরমোনও সার্কুলেশন ঘড়িতে প্রভাব ফেলে। যখন শরীর থেকে স্ট্রেস হরমোন কমে যাবে, তখনই আপনি উৎফুল্ল হবেন। সকালে মানবদেহে স্ট্রেট হরমোনের উৎপাদন সবচেয়ে বেশি থাকে। ক্যাফেইন এই হরমোনের বৃদ্ধিকে আরও বাড়িয়ে দেয়।

এজন্য কফি পানের উপযুক্ত সময় খুব সকালে নয়, একটু বেলায়। ওই সময়ে মানবদেহে স্ট্রেস হরমোন উৎপাদনের মাত্রা কম থাকে এবং এই সময় আপনার ঘুমাতে যাওয়ারও কোন সম্ভাবনা নেই। 
সূত্র : ঢাকা টাইমস২৪

Post a Comment