নিজামীর রিভিউ শুনানির দিন ঠিক হবে ৩ এপ্রিল


একাত্তরে সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে আপিলে মৃত্যুদণ্ড বহালের রায় নিয়ে জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর পুনর্বিবেচনা (রিভিউ) চেয়ে আবেদন শুনানির দিন নির্ধারণের জন্য আগামী ৩ এপ্রিল ধার্য করেছেন আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালত।

বুধবার সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার কোর্ট বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এই আদেশ দেন। এদিন আদালতের শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন, ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. ইকরামুল হক টুটল। 

পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আগামী ৩ এপ্রিল প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে রিভিউ শুনানির দিন নির্ধারণ বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। ওই দিনই ঠিক হবে কবে নিজামীর রিভিউ পুনর্বিবেচনার আবেদন শুনানি হবে।

নিজামীর পক্ষ থেকে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে আপিলেও মৃত্যুদণ্ড বহালের রায় পুনর্বিবেচনা (রিভিউ) চেয়ে ২৯ মার্চ মঙ্গলবার আবেদন দায়ের করা হয়। সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিভিউ আবেদন দাখিল করা হয় বলে জানান নিজামীর ছেলে ব্যারিস্টার নাজিব মোমেন। 

তিনি বলেন, ৭০ পৃষ্ঠার মূল রিভিউর আবেদনের সঙ্গে মোট ২২৯ পৃষ্ঠার নথিপত্রে তার দণ্ড থেকে খালাস চেয়ে ৪৬টি যুক্তি তুলে ধরা হয়েছে।

নিজামীর মৃত্যুদণ্ড বহালের পূর্ণাঙ্গ রায় গত ১৫ মার্চ প্রকাশ করে আপিল বিভাগ। রায় প্রকাশের পর নিয়ম অনুযায়ী ১৫ দিনের মধ্যে রিভিউ আবেদন দায়ের করার সুযোগ রয়েছে। সে অনুযায়ী রিভিউ দায়ের করে আসামিপক্ষ।

নিজামীর মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখে ট্রাইব্যুনালের রায়ের বিরুদ্ধে আনা আপিলের রায় গত ৬ জানুয়ারি ঘোষণা করেছে আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের চার বিচারপতির বেঞ্চ জনাকীর্ণ আদালতে জামায়াতের এ শীর্ষ নেতার বিষয়ে রায়ের সংক্ষিপ্ত অংশ প্রকাশ করেন। 

বেঞ্চের অন্য সদস্যরা হলেন- বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। রায় প্রদানকারী বিচারপতিদের স্বাক্ষরের মধ্য দিয়ে ১৫ মার্চ পূর্নাঙ্গ রায় প্রকাশ করা হয়। 

ট্রাইব্যুনালের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে যাওয়া এটি ষষ্ঠ মামলা, যার চূড়ান্ত রায় প্রকাশ হয়েছে। এর আগে ট্রাইব্যুনালের রায়ের বিরুদ্ধে আনা আরো ৫টি মামলা আপিলে নিষ্পত্তি হয়েছে। 

বাংলাদেশের মন্ত্রী পরিষদে দায়িত্ব পালনকারী তৃতীয় কোনো মন্ত্রী ৭১’এ সংগঠিত মানবতাবতাবিরোধী অপরাধে সর্বোচ্চ দণ্ড পেলেন। এর আগে সাবেক মন্ত্রী জামায়াতের আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ ও বিএনপির সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে।

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের একটি মামলায় ২০১০ সালের ২৯ জুন মতিউর রহমান নিজামীকে গ্রেফতার করার পর একই বছরের ২ অগাস্ট তাকে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়। সে থেকে তিনি কারাগারে রয়েছেন।
সূত্র : জাগোনিউজ২৪

Post a Comment