চার জঙ্গি গ্রেফতার আইনজীবী ও পীর হত্যার ছক ফাঁস

‘এক আইনজীবী ও পীরকে হত্যার ছক এঁকেছিল জঙ্গিরা। সোমবার রাতে রাজধানীর কল্যাণপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে চার জঙ্গি গ্রেফতার হওয়ায় তাদের সেই পরিকল্পনা ভেস্তে গেছে’ বলে জানিয়েছে পুলিশ। গতকাল দুপুরে মিন্টোরোডে ঢাকা মহানগর পুলিশের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে কাউন্টার টেররিজম (সিটি) ইউনিটের প্রধান ডিআইজি মনিরুল ইসলাম জানান, এদের কাছ থেকে ধর্মীয় উগ্র মতবাদ সম্বলিত বই জব্দ করা হয়। এ ব্যাপারে দারুস সালাম থানায় মামলা হয়েছে। তিনি উল্লেখ করেন, পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে কাউন্টার টেররিজম (সিটি) ইউনিটের সদস্যরা চার জঙ্গি আব্দুর রাজ্জাক উমায়ের, ফয়সাল আহম্মেদ, আহমেদ ফজলে আকবর ও আবু নাঈম মোহাম্মদ জাকারিয়াকে গ্রেফতার করে। পরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা যায়, তারা সাংবিধানিক একটি বিষয়ে রিটকারী আইনজীবী ও একজন পীরকে হত্যার জন্য পরিকল্পনা করেছিল। গ্রেফতার হওয়ায় তাদের সেই পরিকল্পনা ভেস্তে গেছে। তিনি বলেন, গ্রেফতারকৃত চারজন নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবি থেকে পালিয়ে যাওয়া এক সদস্যের নেতৃত্বে ছোট একটি গ্রুপ তৈরি করেছিল। এদের নিজেদের কোনো সংগঠন নেই। বিচ্ছিন্নভাবে এরা টার্গেট কিলিং অথবা নাশকতা চালানোর উদ্দেশ্যে জড়ো হয়েছিল। এছাড়া গতমাসে শেষ হওয়া অমর একুশের বই মেলায়ও তাদের বড় ধরনের নাশকতা চালানোর পরিকল্পনা ছিল। মনিরুল ইসলাম বলেন, কারও প্রতি হামলা না করে মেলায় তারা অগ্নিকাণ্ড ঘটিয়ে ও দূর থেকে নাশকতা চালিয়ে দর্শনার্থীদের মনে ভীতি সৃষ্টির পরিকল্পনাও করেছিল। তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজীরবিহীন নিরাপত্তার কারণেই সে পরিকল্পনা তারা বাস্তবায়ন করতে পারেনি। মধ্যপ্রাচ্যে পালিয়ে যাওয়া জেএমবির সদস্যরা তাদের অর্থ সহায়তা করে থাকে বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জঙ্গীরা স্বীকার করেছে। এদের মধ্যে একজন শেখ সোহান সাদ ওরফে বারা আব্দুল্লাহ। পুলিশ শেখ মোহাম্মদ সাদকে খুঁজছে। মনিরুল ইসলাম জানান, চলতি মাসের শেষ দিকে ঢাকা শহরকেন্দ্রিক তারা বেশ কয়েকটি নাশকতার পরিকল্পনা করছিল। আটক ব্যক্তিরা ক্ষুদ্র অংশে বিভক্ত হয়ে নিজেদের আদর্শ বাস্তবায়নে কাজ করছিল। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ডিবি ডিসি (পূর্ব) মাহবুব আলম, ডিবি ডিসি (দক্ষিণ) মাশরুকুর রহমান খালেদ, ডিবি ডিসি (উত্তর) শেখ নাজমুল আলম, ডিবি ডিসি (পশ্চিম) সাজ্জাদুর রহমান ও ডিসি (মিডিয়া) মারুফ হোসেন সরদার। 
সূত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন

Post a Comment