লন্ডনে গো-মূত্র বিক্রির হিড়িক!


লন্ডনের বিভিন্ন দোকানে দেদারসে বিক্রি হচ্ছে গো-মূত্র। মূলত সেখানে বসবাসরত হিন্দু ধর্মাবলম্বীরাই এসব কিনছেন বলে বিবিসির এক খবরে বলা হয়েছে। দোকানে খাবারের পাশেই সাজিয়ে রাখা হয় বোতলভর্তি গো-মূত্র। খবরে বলা হয়, বোতলজাত এসব গো-মূত্র ক্রয় করছেন লন্ডনে অবস্থানরত হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা। তারা বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানে এই গো-মূত্র ব্যবহার করেন। দক্ষিণ এশিয়ার দোকানগুলোতে গো-মূত্র নামেই এগুলো বিক্রি হয়। দোকানের যে তাকে পাউরুটি বিক্রি হয় তারই নিচের তাকে সাজানো থাকে গো-মূত্র। তাতে দামও লেখা থাকে। দোকান সূত্র জানায়, হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন ক্রয় করায় এটি দোকানে রাখা হয়। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় আচার-আচরণের সঙ্গে এটি জড়িত। হিন্দু পরিবারে শিশু জন্ম গ্রহণ করার পর তার ‘শুভকামনায়’ পুজা অনুষ্ঠানে এই গো-মূত্র ব্যবহার করা হয়। ওয়াটফোর্ডে অবস্থিত হরে কৃষ্ণ মন্দির, ভক্তি ভেদান্ত মানরসহ বিভিন্ন ধর্মীয় স্থাপনাগুলোর ডেইরি ফার্মে এই গো-মূত্র উৎপাদন করা হয়। মূলত এই ফার্মগুলোই তা বিক্রি করে থাকে। মন্দিরের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গৌরি দাস বলছেন, ৭০ এর দশক থেকে আমরা এই গো-মূত্র প্রক্রিয়াজাত করে বিক্রি করে আসছি। দক্ষিণ এশিয়ানদের অনেকের কাছে এর বিশাল চাহিদা রয়েছে। অনেকে এটি পূজার কাজে ব্যবহার করে থাকেন। আবার অনেকে ওষুধ হিসেবে ব্যবহার করেন। এমনকি কোনও জিনিস শুদ্ধ করার কাজেও অনেকে এই গো-মূত্র ব্যবহার করেন। ওই মন্দিরের একজন সদস্য বলেন, এটি স্বাদে তিতা এবং আমার কাছে এটা ওষুধের মতো মনে হয়। ব্রিটেনের দ্য ফুড স্ট্যান্ডার্ডস এজেন্সি বলছে, মানুষের খাদ্য হিসেবে গরুর মূত্র বিক্রি করা অবৈধ। অবশ্য ত্বকের ময়লা পরিষ্কার বা এরকম বাহ্যিক ব্যবহারের ক্ষেত্রে খাদ্য আইনে তা বিক্রিতে বাধা নেই। এ ব্যাপারে এক সরকারি কর্মকর্তা বলেন, লন্ডনে গো-মূত্র বিক্রি নিয়ে কোনও খবর আমাদের কাছে নেই। তবে শিগগিরই তা নিয়ে তদন্ত শুরু হবে। 
সূত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন

Post a Comment