গলায় কাঁটা বিঁধলে করণীয়


খাওয়ার সময় অসাবধানতার কারণে অনেক সময় মাছের কাঁটা গলায় আটকে যায়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কাঁটা গলার ভেতরের খাঁজে আটকে থাকে, গেঁথে থাকে না। আর শিশুদের গলায় যখন মাছের কাঁটা বিঁধে, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তখন তা তাদের গলার ভিতরের টনসিলে বিঁধে থাকে। কেননা শিশুদের টনসিল স্বাভাবিকভাবেই আকারে একটু বড় থাকে। গলায় কাঁটা আটকে থাকলে বা বিঁধলে ঢোক গিলতে গলায় ব্যথা অনুভব হয়। তাই গলায় কাঁটা আটকালে আতঙ্কগ্রস্ত না হয়ে কিছু উপায় অবলম্বন করলে কাঁটা সহজেই নামিয়ে ফেলা যায়।তাৎক্ষণিক ভাবে কি করবেন-

১. প্রথমত কয়েক ঢোক পানি খেলে তা পানির ধাক্কায় পাকস্থলীতে নেমে চলে যায়। তারপরেও না গেলে কিছুক্ষণ পর পর কয়েক ঢোক পানি খেতে হবে।

২. শুকনো ভাত দলা করে বা চিড়ে-মুড়ি কলা খাওয়ার প্রয়োজন নেই। কারণ খাঁজে আটকে থাকা কাঁটাকে এরা স্পর্শ করতে পারে না আর বিঁধে থাকা কাঁটাকে ধাক্কা দিলে কাঁটাটা আরো পোক্ত হয়ে গেঁথে যেতে পারে।

৩. এক টুকরো লেবু নিন, তাতে একটু লবণ মাখিয়ে চুষে চুষে লেবুর রস খেয়ে ফেলুন। কাঁটা নরম হয়ে নেমে যাবে। পানির সাথে সামান্য ভিনেগার মিশিয়ে পান করলেও ঠিক লেবুর মতই কাজ হবে।

৪. একটু অলিভ অয়েলও পান করতে পারেন। কাঁটা পিছলে নেমে যাবে।

সর্বাধিক কার্যকর হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা
উপরে বর্ণিত পদ্ধতিগুলি সবসময় কাজ নাও করতে পারে। তবে ভয় নেই। আপনার গলায় আটকানো মাছের কাঁটা ১০০% নিশ্চয়তা সহ খুব দ্রুত নেমে যাবে। তার জন্য আপনার নিকটস্থ একজন হোমিও ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করুন। গলায় মাছের কাঁটা বিঁধলে এবং ইনফেকশন হলে সর্বাধিক কার্যকর ট্রিটমেন্ট হলো হোমিওপ্যাথি।
সূত্র : বিডিনিউজ২৪

Post a Comment