গুণে ভরা ফুটি


গ্রীষ্মকালীন ফলের মধ্যে ফুটি একটি পরিচিত ফল। এটি বাঙ্গি নামেও অনেকের কাছে পরিচিত। সুগন্ধযুক্ত সাধারণ স্বাদের ফুটি পুষ্টিগুণে অনন্য। বাজারে এখন নানা আকৃতির ফুটি পাওয়া যাচ্ছে। ফুটি নানা স্বাস্থ্য উপকারী গুণে ভরপুর। খাওয়ার আগে আসুন জেনে নেয়া যাক ফুটির পুষ্টি সম্পর্কে-

ফুটিতে রয়েছে উচ্চমাত্রার বিটা ক্যারোটিন ও ভিটামিন সি। বিটা ক্যারোটিন ও ভিটামিন সি শরীরের ক্ষত দ্রুত সারাতে সাহায্য করে। এতে চিনির পরিমাণ রয়েছে খুবই কম, তাই ডায়াবেটিস রোগীরাও খেতে পারেন সাচ্ছন্দে।

ফুটিতে থাকা প্রচুর পরিমাণে পানি, যা গরমে শরীরের তাপমাত্রা ঠিক রাখতে সাহায্য করে। ফুটিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে খাদ্যআঁশ, যা খাদ্য হজম করতে এবং হজমশক্তি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। গরম ও অতিরিক্ত রোদের জন্য হয় সানবার্ন, সামার বয়েল, হিট হাইপার পাইরেক্সিয়া। ফুটির রস এই অসুখগুলো প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

অ্যাসিডিটি, আলসার, নিদ্রাহীনতা, ক্ষুধামান্দ্য, নারীদের হাড়ের ভঙ্গুরতা রোধ করতে সাহায্য করে ফুটি। পুরুষের হাড়ও মজবুত করে ফুটি। ফুটি ত্বকে বয়সের ছাপ এবং ত্বক কুচকে যাওয়া প্রতিরোধ করে। বাঙ্গি থেতো করে নিয়ে মধুর সাথে মিশিয়ে ত্বকে লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট। নিয়মিত ব্যবহারে পাবেন উজ্জ্বল সুন্দর ত্বক।

ফুটিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফলিক অ্যাসিড যা রক্ত তৈরিতে সাহায্য করে। তাই মানুষের জন্য, বিশেষ করে গর্ভবতী মায়েদের জন্য ফুটি বিশেষ উপকারী ফল। ফুটিতে কোনো চর্বি নেই। যারা দেহের অতিরিক্ত ওজন নিয়ে বিশেষ চিন্তায় ভোগেন তারা এ ফল খেতে পারেন নির্দ্বিধায়। দেহের ওজন কমাতে এবং উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে ফুটির ভূমিকা অপরিহার্য।

ত্বকের ব্রনের সমস্যা কিংবা একজিমা সমসসায় যারা ভুগে থাকেন তাদের জন্য ফুটি অনেক বেশি উপকারী। ফুটি ব্লেন্ডারে ভালো করে ব্লেন্ড করে নিয়ে একটি পাতলা কাপড়ে ছেঁকে রসটুকু বের করে নিন। এই রস আপনি লোশনের মতো ব্যবহার করতে পারেন করা গেলে ব্রণ এবং একজিমার সমস্যা থেকে রক্ষা পাবেন। ভিটামিন বি এর একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান ইন্সনিটোল যা আমাদের নতুন করে চুল গজাতে সাহায্য করে এবং চুল পড়া প্রতিরোধ করে। এই উপাদানটি বাঙ্গিতে প্রচুর পরিমাণে রয়েছে। নিয়মিত ফুটি খেলে চুল হয় স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ও সুন্দর।
সূত্র : জাগোনিউজ২৪

Post a Comment