অটিজম সচেতনতায় পিএফডিএ’র প্রচারণা


‘অটিজম লক্ষ্য ২০৩০ : স্নায়ু বিকাশের ভিন্নতার একীভূত সমাধান’- প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে অটিজম বিষয়ে গণসচেতনতা বাড়ানোর জন্য দু’দিনব্যাপী প্রচারণা চালানো হয়। বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার বসুন্ধরা গ্রুপের সহযোগিতায় বসুন্ধরা সিটিতে প্যারেন্টস ফোরাম ফর ডিফারেন্টলি অ্যাবল ও পিএফডি-ভোকেশনাল ট্রেনিং সেন্টার এ আয়োজন করে।

প্রচারণার প্রথম দিন বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বসুন্ধরা সিটির লেভেল-৮ এ এর উদ্বোধন করা হয়। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি ও বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুরা সব মানুষের মধ্যে অটিজম সচেতনতা তৈরিতে হাতে হাত মিলিয়ে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করে।

এরপর শিশু ফরহাদের ‘সুখী মানুষের গান’ দিয়েই শুরু হয় অনুষ্ঠান। এ আনন্দে যোগ দেন কণ্ঠশিল্পী ফাহমিদা নবী, নৃত্যশিল্পী আমিনুল ইসলাম নিরু, এভারেস্ট জয়ী এমএ মুহিত, শিল্পী শাহেদ, সাংবাদিক জ ই মামুন, বসুন্ধরা সিটির ইনচার্জ টিআইএম লতিফুল হোসেন। এসময় শিশুরা অতিথিদের উত্তরীয় পরিয়ে দেন। ‘আমি বাংলায় গান গাই’ গানটির মধ্য দিয়ে ফাহমিদা নবী শিশুদের সঙ্গে কণ্ঠ মেলান।

দু’দিনের এ আয়োজনের সমাপনী দিনে বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের মধ্যে কবিতা আবৃত্তি করে রাচিক। সংগীত পরিবেশন করে আকিব ও নাফিজ। প্রচারণায় উপস্থিত হন অভিনেতা ওমর সানি, ‘সুখী মানুষের গান’ খ্যাত শিল্পী শাইখ সালেকিন, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মো. আশরাফুল, সাংবাদিক মুন্নি সাহা, কালের কণ্ঠের সম্পাদক ও কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন।

এছাড়া অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যান কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন, বরেণ্য নাট্যব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার, কথাসাহিত্যিক আনিসুল হক, ক্রিকেটার খালেদ মাসুদ পাইলট, সোহান, জুনায়েদ, ফারজানা করিম, মাজহারুল মান্নান প্রমুখ উপস্থিত হয়ে একাত্মতা প্রকাশ করেন।

অটিজম সম্পর্কে অতিথিরা বলেন, সবাই মিলে কাজ করলে এ শিশুরা আর স্পেশাল থাকবে না। একদিন দেশের গর্ব হয়ে যাবে। যারা এ শিশুদের নিয়ে কাজ করেন তারা মহান। প্রধানমন্ত্রীর কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল শুধু বাংলাদেশ নয় সারাবিশ্বে এ শিশুদের বিষয়ে সচেতন করতে কাজ করে যাচ্ছেন। এ শিশুদের প্রতিভা লালন করতে হবে। আগামী দিনগুলো এ শিশুদের আলোয় আলোকিত হবে।

অতিথিরা সাপোর্টস বুকে অটিজম সচেতনতার বিষয়ে মতামত লেখেন। শিশুরা অতিথি, সেলিব্রেটির সঙ্গে যোগ দেন ফটো সেশনে। অতিথি আর সেলিব্রেটির সঙ্গে সেলফি তুলে আনন্দ প্রকাশ করে শিশুরা। আবেগ আর ভালোবাসায় দু’দিনের এ মিলন মেলার সমাপ্তি হয়।

দু’দিনের এই বিশাল আয়োজনে সঞ্চালনা করেন সংগঠনের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর সাজিদা রহমান ড্যানি।

সূত্র : জাগোনিউজ২৪

Post a Comment