জঙ্গলে নিজের মুত খেয়ে বেঁচেছেন তরুণ সৈনিক


জঙ্গলে হারিয়ে গিয়েছিল কলম্বিয়ার এক তরুণ সৈনিক। ২৩ দিন পর তাকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। জনমানব শূন্য ওই জঙ্গলে এত দিন ধরে তিনি কাঁচা কচ্ছপের মাংস খেয়েছেন। পিপাসায় পান করেছেন নিজের প্রস্রাব। এ খবর জানিয়েছে ডেইলি মেইল।

ওই সৈনিকের নাম ইয়েফের অরল্যান্ডো সানচেজ ফনসেকা। বয়স ২৬। গত ৫ মার্চ কলম্বিয়ার মেটা অঞ্চলের এক গহীন অরণ্যে সেনা ড্রিলে গিয়ে মূল দল থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যান সানচেজ। ৪০ জনের দলে খানিকটা পিছিয়ে পড়েছিলেন তিনি। অল্প সময়ের জন্য এক জায়গায় থেমেও পড়েছিলেন। এতেই সঙ্গীদের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যান তিনি। পরে অনেক খুঁজেও আর তাদের দেখা পাননি। শেষমেষ গহীন জঙ্গলে রাস্তা হারিয়ে ফেলেন। এ সময় তার কাছে কোনো খাবার বা পানি ছিল না। সম্বল বলতে ছিল একটি বন্দুক, কিছু গোলাবারুদ, একটা হেলমেট আর একটা দিয়াশলাই। এর ওপর ওই জঙ্গলটি হচ্ছে সশস্ত্র গেরিলাদের আস্তানা। তাদের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য তাকে অনেক কসরৎ করতে হয়েছে। এক সময়ের সামরিক প্রশিক্ষণই তাকে ওই জঙ্গলে একাকি বাঁচিয়ে রাখতে সাহায্য করেছে বলে উদ্ধার পাওয়ার পর জানিয়েছেন সানচেজ।

তিনি বেঁচে থাকার জন্য কচ্ছপের কাঁচা মাংস গলদধারণ করেছেন। তৃষ্ণা মেটাতে পান করেছে নিজের মুত। নিজেকে চাঙ্গা রাখতে গেয়েছেন প্রিয় কিছু রক গান। জঙ্গল থেকে বেরিয়ে আসার বহু চেষ্টাও করেছিলেন। কিন্তু সফল হননি। রাতে ঘুমাতে পারতেন না ভয়ে। এই বুঝি কোনো হিংস্র জন্তু এসে তার ঘাড়ে ঝঁপিয়ে পড়ল। তাকে গুলি করে দিল কোনো সন্ত্রাসী। তাই বন্দুকটা হাতে নিয়ে বসে থাকতেন অজ্ঞাত শত্রুকে বিনাশ করার ইচ্ছায়। কিন্তু এ সবই ছিল তার মনের ভয়।

শেষে গত ২৯ মার্চ অনুসন্ধানকারী সেনাদল তাদের হারিয়ে যাওয়া সঙ্গীকে খুঁজে পান। খাওয়ার অভাবে অনেকটা শুকিয়ে গেলেও মোটামুটি সুস্থই ছিল সানসেচ। তারা তাকে হেলিকপ্টারে করে বাড়ি ফিরিয়ে আনেন। সভ্য সমাজে ফিরে আসার পর তার অনুভূতি হচ্ছে,‘মাকে পুনরায় দেখতে পেয়ে আমি ভীষণ খুশী। আমাকে উদ্ধার করায় ব্যাটেলিয়নের সহকর্মীদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ।’
সূত্র : বাংলামেইল২৪

Post a Comment