এবার ‘সজারু রেস্তোরাঁ’ চালু করলো জাপান


ক্রেতা আকর্ষণে রেস্তোরাঁতে বেড়াল, খরগোশ ইত্যাদি প্রাণি সাজিয়ে রাখে জাপানীরা। তবে এবার এর পাশাপাশি যুক্ত হলো সজারু। এর আগে থাকা ‘ক্যাট ক্যাফে’ (বেড়াল রেস্তোরাঁ), ‘র‌্যাবিট ক্যাফে’র (খরগোশ রেস্তোরাঁ) পাশাপাশি এবার দেশটির রাজধানী টোকিওতে এলো ‘হ্যাজহগ ক্যাফে’ (সজারু রেস্তোরাঁ)।

জানা গেছে, ইতিমধ্যে রেস্তোরাঁটিতে ত্রেুতার সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। ক্রেতারা নতুন এই রেস্তোরাঁটি সম্পর্কে আগ্রহী হয়ে উঠছে। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তাদের এখানে মাত্র ছয় ইউরো (৫৩৫ টাকা) ব্যয় করে যে কোনে ক্রেতা যেমন সুস্বাদু খাবার খেতে পারবে, তেমনি বাড়তি আনন্দের জন্য দুর্লভ ওই প্রাণিটির সান্নিধ্যও পেতে পারবে।’

কর্তৃপক্ষ আরো জানায়, ইতিমধ্যে দুর্লভ ওই প্রাণিটির জন্য ক্রেতারা সারি বেধে তাদের রেস্তোরাঁয় যাচ্ছে। প্রাণিটির সাড়া দেহ কাটায় আবৃত থাকলেও তা ভদ্র ,নম্র এবং খুব অমায়ীক- এটা ক্রেতাদের জানানোই তাদের উদ্দেশ্য বলেও জানায় কর্তৃপক্ষ। তারা বলেন, ‘এটি প্রাণিদের প্রতি আমাদের ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ।’

জাপানের রাজধানী টোকিওতে ক্রেতা আকর্ষণে রেস্তোরাঁগুলো এর আগে স্বল্পবসনা নারী পরিবেশনকারী কিংবা বেড়াল প্রেমীদের জন্য বেড়াল রেখে আলোচনায় এসেছিল। তাদের ধারণা, রেস্তোরাঁগুলোতে খাবারের পাশাপাশি বাড়তি আকর্ষণের জন্য বিশেষ  কোনো ব্যবস্থা থাকলে ক্রেতাদের সহেজেই আকৃষ্ট করা যায়। এতে বেচাকেনাও ভালো হয়ে।

উল্লেখ্য, সজারু জাপানে একটি বিরল প্রাণি। এটি দেশটিতে সচরাচর দেখা যায় না। বেশিরভাগ সময় বিদেশ থেকেই সজারু আমদানি করে জাপানীরা। 
সূত্র : বাংলামেইল২৪

Post a Comment