দেশে আর্সেনিকে মারা যাচ্ছে বছরে ৪৩০০০ মানুষ


দেশে প্রতিবছর আর্সেনিকে আক্রান্ত হয়ে ৪৩ হাজার মানুষ মারা যাচ্ছে। আর ঝুঁকিতে আছে দেশের প্রায় ২ কোটি মানুষ। শুধু রাজনৈতিক স্বদিচ্ছার অভাবে দিনে দিনে অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠছে আর্সেনিক, সমস্যা সমাধানে গত ২০ বছরেও হয়নি কোনো অগ্রগতি।

বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এ তথ্য জানিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ)।

প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, এই সমস্যা সমাধানে গত কয়েক বছরে দেশ জুড়ে কয়েক লাখ নলকূপের অর্সেনিক মাত্রা পরীক্ষা করা হয়েছে। বসানো হয়েছে আর্সেনিকমুক্ত গভীর নলকূপ। তারপরও আর্সেনিক দেশের প্রধান স্বাস্থ্যগত সমস্যাই রয়েছে। 

আর্সেনিক সমস্যা ছাড়াও আরো কয়েক কোটি মানুষ ক্যান্সার, ত্বকের ক্ষয়, হৃদরোগ ও ফুসফুসের জটিলতায় ভুগছে বলেও জানানো হয়।

সরকারি হিসাব মতে, ২০০০-০৩ সালের মধ্যে গ্রামগুলোতে ৫ লাখের মত নলকুপে আর্সেনিক পরীক্ষা চালানো হয়েছিল। তখন আর্সেনিক মুক্ত নলকুপগুলোকে সবুজ ও আর্সেনিকযুক্তগুলোকে লাল রং দেয়া হয়েছিল। ২০০৩ সালের আগে বাংলাদেশের ২ কোটির মত মানুষ আর্সেনিক মেশানো পানি পান করতো। কিন্তু সম্প্রতি গবেষণায় দেখা যাচ্ছে, এখনো বাংলাদেশের ২ কোটি মানুষ অনিরাপদ বা আর্সেনিকযুক্ত পানি পান করছে।

সংস্থার মতে কিছু রাজনৈতিক নেতা তাদের সমর্থকদের জন্য নিরাপদ পানির ব্যবস্থা করলেও গ্রামগুলোর অসংখ্য মানুষ এই সুবিধা থেকে বঞ্চিত রয়েছে। ওইসব প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে আর্সেনিক পরীক্ষা বা এটি তদারকি করার কার্যক্রমে ব্যাপক ঘাটতি রয়েছে বলে মনে করছে এইচআরডব্লিউ।
সূত্র : বাংলামেইল২৪

Post a Comment