বেঙ্গলে শুরু বর্ষবরণ


বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের আয়োজনে শুরু হয়েছে পাঁচ দিনব্যাপী বর্ষবরণের অনুষ্ঠানমালা। ‘চিত্ত জাগুক গানে গীতে কাব্যে কথায়’ শ্লোগানে গেল শনিবার, ৯ এপ্রিল ধানমণ্ডির বেঙ্গল শিল্পালয়ে সূচনা হলো এই আয়োজনের।

বেঙ্গল ফাউন্ডেশন জানালো, রবীন্দ্রনাথ, তিন কবির গান, রাগাশ্রয়ী, লোক ও উচ্চাঙ্গসংগীত দিয়ে সাজানো হয়েছে পাঁচদিনের অনুষ্ঠানমালা। সিলেটের সংগঠন গীতবিতান বাংলাদেশের শিশুশিল্পীদের পরিবেশনার মধ্য দিয়ে শুরু হয় উদ্বোধনী আয়োজন।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাজী নজরুল ইসলাম, মাইকেল মধুসূদন দত্ত, দ্বিজেন্দ্রলাল রায়, রজনীকান্ত সেনের সংগীত সমবেতভাবে পরিবেশনায় অনুষ্ঠানস্থলে সুরের মুগ্ধতা ছড়ান শিল্পীরা। এরপর ‘ওপেন্টি বায়োস্কোপ’ থেকে শুরু করে, ‘আম পাতা জোড়া জোড়া’, ‘আইকম বাইকম তাড়াতাড়ি’সহ ছড়াপাঠের মধ্য দিয়ে শিশুরা মনোজ্ঞ করে তোলেন বৈশাখের এই আয়োজন।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের, ‘আলো আমার আলো ওগো’, ‘আজ ধানের ক্ষেতে রৌদ্র ছায়ায়’, ‘হলুদ গাঁদার ফুল’ গানের সঙ্গে দলীয় নৃত্যের সংযোগে নববর্ষকে অগ্রিম স্বাগত জানায় ম্যাপললীফ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের ক্ষুদে বন্ধুরা।

দ্বিতীয় পর্বে পাপেট শো’তে অংশ নেয় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের বাংলাদেশ পুতুল নাট্য গবেষণা ও উন্নয়ন কেন্দ্র। ড. রশীদ হারুনের পরিচালনায় মুনীর চৌধুরীর রচনা অবলম্বনে ‘কুপোকাত’, জসীম উদ্দীনের ‘টোনাটুনি’ ও উপেন্দ্রকিশোর রায় চৌধুরীর নাককাটা ‘রাজা’ এর পুতুলনাট্য পরিবেশিত হয়।

ইকবাল বাহার চৌধুরীর সঞ্চালনায় সন্ধ্যায় প্রথম দিনের দ্বিতীয় অধিবেশনে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের বিভিন্ন পর্যায়ের গান পরিবেশন করেন খায়রুল আনাম শাকিল, ইয়াকুব আলী খান, নাসিমা শাহীন, শারমিন সাথী ইসলাম, চম্পা বণিক, শহিদ কবির পলাশ, লতিফুন জুলিও, বিজন চন্দ্র মিস্ত্রি ও মোহাম্মদ শোয়েব।

দ্বিতীয়দিন রবিবার অনুষ্ঠানমালায় রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বিভিন্ন পর্যায়ের গান পরিবেশন করবেন রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, বুলবুল ইসলাম, শামা রহমান, ফাহিম হোসেন চৌধুরী, মহিউজ্জামান চৌধুরী, অদিতি মহসিন, লাইসা আহমদ লিসা, সেমন্তী মঞ্জরী, ফারহিন নুসরাত জয়িতা, সৈকত মজুমদার ও নির্ঝর চৌধুরী।

তৃতীয় দিন সোমবার থাকবে তিনকবি ও রাগাশ্রয়ী সংগীতসন্ধ্যা। লুভা নাহিদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় গান করবেন ফারহানা রহমান কান্তা, অলোক কুমার সেন, মাহমুদুল হাসান, অনিন্দিতা চৌধুরী, ঝুমা খন্দকার, তানভীর আলম সজীব, সুবীর নন্দী ও ইফফাত আরা দেওয়ান।

চতুর্থ দিন মঙ্গলবার থাকবে লোকসংগীতসন্ধ্যা। কিরণ চন্দ্র রায়ের সঞ্চালনায় দলীয় যন্ত্রসংগীত পরিবেশনায় রয়েছেন, দোতারায় ফাইজুর রহমান, মনিরুজ্জামান- বাঁশি, ইউসুফ খান- সরোদ, নুরুজ্জামান বাদশা- বেহালা, একরাম হোসেন- এসরাজ, ইফতেখার আলম ডলার- তবলা।

গান গাইবেন লাবিক কামাল গৌরব, ভজন বাউল, সিদ্দিকুর রহমান, হালিমা পারভীন, বিমান চন্দ্র বিশ্বাস, চন্দনা মজুমদার ও কিরণ চন্দ্র রায়।

পঞ্চম দিনের অনুষ্ঠানমালায় বুধবার রয়েছে উচ্চাঙ্গসংগীত সন্ধ্যা। সুবীর নন্দীর সঞ্চালনায় দলীয় বাদন : সবুজ আহ। চৈত্রের শেষদিনে (১৩ এপ্রিল) শেষ হবে পাঁচদিনের এই আয়োজন।

সূত্র : জাগোনিউজ২৪

Post a Comment