Sponsored Ad

রাবিতে ছাত্রলীগ নেতাদের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবি



রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) প্রকৌশলীকে পেটানোর দায়ে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিষ্কৃত তিন ছাত্রলীগ নেতার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। বুধবার দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগারের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে তারা এ দাবি জানান।

এর আগে ২০১৪ সালের ২৮ আগস্ট টেন্ডার নিয়ে দ্বন্দ্বে ক্ষুব্ধ হয়ে উপাচার্য দফতরের অপেক্ষামান কক্ষে ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী সিরাজুম মুনিরকে মারধর করেন ছাত্রলীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম তুহিন, সহসভাপতি তন্ময়ানন্দ অভি ও শহীদ হবিবুর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মামুন-অর-রশীদ। এ ঘটনার দুদিন পর উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন বিশেষ ক্ষমতাবলে জড়িত তিনজনকে সাময়িক বহিষ্কার করে তদন্তের নির্দেশ দেন। এরপর চলতি বছরের ৭ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা কমিটি তদন্ত শেষে তাদের স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের সুপারিশ করে। অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় গত ২৯ মার্চ সিন্ডিকেট সভায় তাদেরকে স্থায়ী বহিষ্কার করা হয়।

আয়োজিত মানববন্ধনে ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাশেদুল ইসলাম রাঞ্জু বলেন, ‘আমরা স্বীকার করছি তারা ভুল করেছে। কিন্তু লঘু অপরাধের জন্য গুরু শাস্তি দিতে পারেন না।’ তাদের ভুল মাফ করে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যারহার করতে প্রশাসনের কাছে তিনি অনুরোধ জানান।

এসময় তিনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সমালোচনা করে বলেন, ‘আপনারা ছাত্রলীগ কর্মী ফারুক হত্যাকারীদের বিচার করতে পারেননি, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ইউনুস হত্যার সঙ্গে জড়িত ছাত্র শিবিরের নেতাকর্মীদের বিচার করেননি, অথচ ছাত্রলীগের এই নেতাদের সামন্য ভুলের কারণে তাদের ছাত্রত্ব বাতিল করলেন। যারা সবসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভালো কাজের নেতৃত্ব দিয়েছে।’ 

মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধরণ সম্পাদক খালিদ হাসান বিপ্লবের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাশেদুল ইসলাম রাঞ্জু, মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড রাবি শাখার সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব, সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু, ছাত্র বৃত্তি বিষয়ক সম্পাদক টগর মো. সালেহ প্রমুখ। মানববন্ধনে ছাত্রলীগের শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।
সূত্র : জাগোনিউজ২৪

Post a Comment