রিজার্ভ চুরি : ক্যাসিনোতে ব্যবহার হয় ৩০ মিলিয়ন ডলার


বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের চুরি যাওয়া ৮ কোটি ১০ লাখ মার্কিন ডলারের মধ্যে ৩০ মিলিয়ন ডলার ফেব্রুয়ারিতে ফিলিপাইনের একটি ক্যাসিনোতে ১৯ জনের একটি দল জুয়া খেলে উড়িয়ে দিয়েছে। চীনা বংশোদ্ভূত ফিলিপিনো জাংকেট অপারেটর কিম অং ওই রিজার্ভের একটি অংশ ফিরিয়ে দেওয়ার আগে এ ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার ব্লুমবেরি রিসোর্ট করপোরেশনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বড় জুয়াড়িদের একটি দল সোলায়ার রিসোর্ট ও ক্যাসিনোতে দুই চীনা ব্যবসায়ীর সঙ্গে জুয়া খেলতে শুরু করে। ওই জুয়াড়িরা ২৭৮ দশমিক ৬ মিলিয়ন ফিলিপিনো পেসো আসর থেকে জিতে নেয়। ব্লুমবেরি রিসোর্ট করপোরেশন ফিলিপাইন সিনেটের ব্লু রিবন কমিটির কাছে ওই প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানিয়েছে।

ব্লুমবেরি রিসোর্টের তথ্য অনুযায়ী, সোলায়ার কর্তৃপক্ষ ওই ঘটনার পাঁচ সপ্তাহ পর গত ১০ মার্চ পাঁচ জুয়াড়িকে নজরে রাখে। অপর ছয়জনের কাছে থেকে ১০৭ দশমিক ৪ মিলিয়ন পেসো ফ্রিজ করে। এছাড়া আরো ১ দশমিক ৩৫ মিলিয়ন পেসো বাজেয়াপ্ত করে। ক্যাসিনোর একজন অপারেটর বলেন, আদালতের আদেশ না পাওয়া পর্যন্ত ওই অর্থ জমা থাকবে।

ব্লুমবেরি রিসোর্টের কমপ্লায়েন্স কর্মকর্তা সিলভারিও বেনি জে ট্যান বলেন, আমরা হতাশ যে ক্যাসিনোকে এখন এই দুঃখজনক ঘটনায় বলির পাঁঠা বানানো হচ্ছে। তিনি বলেন, আমরা এখানে অপরাধী নই। তবে ব্লুমবেরির মুখপাত্র জয় ওয়াসামার এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে ফিলিপাইনের দুটি ক্যাসিনোতে যাওয়া বাংলাদেশ ব্যাংকের ৮ কোটি ১০ লাখ মার্কিন ডলার চুরির এই ঘটনা গত ৫ ফেব্রুয়ারিতে ঘটে। আধুনিক যুগের ইতিহাসে এটিকে সবচেয়ে বড় সাইবার চুরি বলা হচ্ছে। তবে এই অর্থ থেকে শ্রীলঙ্কায় স্থানান্তর করা ২০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ইতিমধ্যে উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া চীনা ব্যবসায়ী কিম অং গত  সপ্তাহে তার অ্যাকাউন্টে যাওয়া ৪৬ লাখ ডলার অর্থ ফেরত দিয়েছেন ফিলিপাইনের অ্যান্টি মানি লন্ডারিং কাউন্সিলের কাছে। তিনি এই ঘটনায় জড়িত নন দাবি করে সিনেটের শুনানিতে বলেছেন, ভুলভাবে তার অ্যাকাউন্টে ওই অর্থ ঢুকেছিল।

Source : jagonews24

Post a Comment