মাদকের সমস্যা দূরীকরণে শিক্ষকদের দায়বদ্ধতা আছে


যুব সমাজকে মাদকের ভয়াবহ ছোবল থেকে রক্ষা করতে শিক্ষকদের দায়বদ্ধতা রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।  বুধবার ঢাকার ফার্মগেটে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর আয়োজিত “মাদকবিরোধী সচেতনতা সৃষ্টিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ভূমিকা” শীর্ষক আলোচনা সভায় এমন্তব্য করেন তিনি।

মাদকের ভয়াবহতা থেকে রক্ষা করতে সারাদেশে স্কুল কলেজে গঠিত মাদক বিরোধী কমিটিসমূহের কার্যকর ভূমিকার উপর জোর দিয়ে তিনি বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ব্যবস্থাপনা কমিটি ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে সম্পৃক্ত করে এসব কমিটি মাদক বিরোধী জনসচেতনতা সৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। 

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের মহাপরিচালক খন্দকার রাকিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মো. মোজাম্মেল হক খান, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবের দায়িত্বে অতিরিক্ত সচিব এ এস মাহমুদ, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক প্রফেসর ফাহিমা খাতুন এবং মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক মো. আমীর হোসেনও বক্তব্য রাখেন।

তিনি আরো বলেন, শিক্ষার্থীদের সুশিক্ষা নিশ্চিত করার পাশাপাশি তাদের মাদকের মতো ভয়াবহ সমস্যা থেকে দূরে রাখার ক্ষেত্রেও শিক্ষকদের দায়বদ্ধতা রয়েছে। ক্লাশরুমকে আকর্ষণীয় করা, খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ সহশিক্ষা কার্যক্রমকে জোর দেয়া, হতাশাগ্রস্থ শিক্ষার্থীদের কাউন্সিলিং করা এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মাদকবিরোধী কর্মসূচি পালনের আহ্বান জানান তিনি।

নাহিদ বলেন, বিভিন্ন শ্রেণির পাঠ্যপুস্তকে মাদকবিরোধী বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।  বিশেষজ্ঞদের মতামতের ভিত্তিতে এধরনের  আরো বিষয়বস্তু পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত  করা যেতে পারে।

উল্লেখ্য, সারাদেশে মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে ৩২ হাজার ৩১টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ২১ হাজার ৮৩টি ইতোমধ্যে মাদকবিরোধী কমিটি গঠন করা হয়েছে। অবশিষ্ট ১০ হাজার ৯৪৮টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এ কমিটি গঠন প্রক্রিয়া চলছে।

আলোচনা সভায় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের অধীন শিক্ষা বিভাগীয় কর্মকর্তা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।
সূত্র : জাগোনিউজ২৪

Post a Comment