মানসম্মত শিক্ষা নেই যুক্তরাষ্ট্রে?



দিয়া, বয়স ৩৪। একজন প্রশিক্ষিত ধাত্রী। গর্ভবতী মাকে সন্তান জন্মের আগে ও পরে সহায়তা করে থাকেন। যুক্তরাষ্ট্রের হারলেমে বসবাস করেছেন। সম্প্রতি তার পরিবার হারলেম থেকে দক্ষিণের আরো নিরাপদ একটি বৃহৎ কমপ্লেক্সে স্থানান্তরিত হয়েছে।

তিনি বলেন, এই প্রথমবারের মতো তিনি এবং তার স্বামী নিউ ইয়র্কের বাইরে দক্ষিণের কোনো সাশ্রয়ী শহরে স্থানান্তরের চিন্তা করেছেন। কিন্তু একটি নতুন ভবনে যাওয়ার ফলে তাদের ওপর চাপ তৈরি হয়েছে। নিউ ইয়র্ক সিটিতে বসবাস করা পরিবারগুলোর মধ্যে বড় দুশ্চিন্তা দেখা গেছে, এদের অনেকের মধ্যে বসবাসের ব্যয় বৃদ্ধি ও মানসম্মত শিক্ষা নিয়ে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে।

দিয়ার চার ও ১৪ বছর বয়সের মধ্যে দুই ছেলে ও দুই মেয়ে যদিও স্কুলে ভালোভাবে পড়াশুনা করছে, তারপর তিনি ও তার স্বামী ডেনিস সন্তানদের জন্য সরকারি দুর্বল শিক্ষা ব্যবস্থার পেছনে অনেক সময় ব্যয় করেন। দিয়া আলজাজিরাকে বলেন, একজন পিতা বা মাতা হিসেবে আমি মনে করতাম, তারা (সন্তানরা) ভালো শিক্ষাই পাচ্ছেন, কিন্তু আসলে সেরকম নয়। আর একই এলাকায় আমিও পড়াশুনা করেছি। শিক্ষা-ব্যবস্থার উন্নতির জন্য বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপের আগে, চার্টার স্কুলের শিশুদের জন্য কোনো ধরনের আইন ছিল না।

দিয়া অনুভব করেন, তার কিশোরী কন্যা সমালোচনামূলক চিন্তা ভাবনার চেয়ে স্কুলে বিভিন্ন কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ছে। এখন তার শিশু স্কুলে রয়েছে, স্কুলগামী সবচেয়ে ছোট অ্যাডেন এখন আর ছোট্ট বাচ্চা নয়; দিয়া তার সন্তানদের পড়াশুনার ব্যয়ভার বহন করার জন্য বেশি আয়ের আশায় বাইরে কাজের সন্ধ্যান করছেন। তিনি বলেন, স্কুলে এই বছর তাদের (সন্তানদের) জীবনের জন্য অত্যন্ত কঠিন। দিয়া বলেন, এখন মনে হচ্ছে, চারদিক থেকে সব দেওয়াল বন্ধ হয়ে আসছে।

চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনী ক্যাম্পেইনে দেশটির শিক্ষা-ব্যবস্থা নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। কিন্তু এতে আশান্বিত হতে পাচ্ছেন না দিয়া। তিনি বলেন, বাস্তব পদক্ষেপ ছাড়া এটা এক ধরনের লোক দেখানো। শিক্ষা নিয়ে তার যে উদ্বেগ সে বিষয়ে খুব কমই আলোচনা করছেন প্রেসিডেন্ট প্রার্থীরা।

Source : jagonews24

Post a Comment