বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কিশোরীকে গণধর্ষণ


বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার এক কিশোরীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠছে ওই কিশোরীর প্রেমিক ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে। বর্তমানে এই কিশোরীকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার ভাটপিয়ারী পাঁচঠাকুরী গ্রামের এক কিশোরীর সঙ্গে পার্শ্ববর্তী পারপাচিল গ্রামের ঘুটি খার ছেলে রাসেল প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। বুধবার বিকেলে রাসেল এই কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বাড়ি থেকে বের করে নিয়ে যায়। এসময় রাসেল সুকৌশলে তাকে যমুনা নদীর ভাটপিয়ারী চরে নিয়ে যায়। সেখানে বখাটে রাসেল ও তার ৫ সহযোগী রাতভর ওই কিশোরীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। 

বৃহস্পতিবার সকালে মেয়েটি অসুস্থ অবস্থায় চর থেকে নিজ গ্রামে ফেরার সময় এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে। পরে ওই কিশোরীর ভাই ফরিদুল ইসলাম ও শহিদুল ইসলাম তাকে সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসাপাতালে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় মেয়েটির ভাই ফরিদুল বাদী হয়ে সিরাজগঞ্জ সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

এ ব্যাপারে সিরাজগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. আঞ্জুমানা খাতুন জানান, প্রাথমিক পরীক্ষা নিরীক্ষা করে মেয়েটির শরীরে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। পালাক্রমে ধর্ষণের কারণে মেয়েটির অবস্থা গুরুতর।

সিরাজগঞ্জ সদর থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) নুরুল হুদা জানান, বিষয়টি জানার পর ব্যবস্থাগ্রহণ করা হয়েছে। মেয়েটির স্বাক্ষ্য নেবার পর অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহণ করা হবে।  
সূত্র : জাগোনিউজ২৪

Post a Comment