নারী ক্রীড়াবীদদের সম্মাননা দিচ্ছে ক্রীড়া লেখক সমিতি


বাংলাদেশ ক্রীড়ালেখক সমিতি স্বাধীনতা পরবর্তী সময় থেকে এখন পর্যন্ত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গেমস ও চ্যাম্পিয়নশিপে স্বর্ণজয়ী নারী ক্রীড়াবিদদের সম্মাননা জানানোর সিদ্ধান্ত নিছেছে। ইউনিলিভার বাংলাদেশ লিমিটেডের পৃষ্ঠপোষকতায়, ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি ফাউন্ডেশন ক্রীড়াঙ্গনের অদম্য নারী-শীর্ষক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সম্মননা জানানো হবে নারী ক্রীড়াবীদদের। আগামী শনিবার বিকেল ৩টায় অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ টাওয়ার মিলনায়তনে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। এই অনুষ্ঠানে ব্যক্তিগত ও দলগত ইভেন্টে স্বর্ণজয়ী ১৮ নারী এ্যাথলেটদের সম্মাননা জানানো হবে ক্রেস্ট ও উত্তরীয় দিয়ে। এছাড়া বাংলাদেশের নারীদের খেলাধুলার অগ্রদূত রানী হামিদকে দেয়া হবে আজীবন সম্মাননা।ইঝচঅ

এ উপলক্ষ্যে আজ (বুধবার) বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ক্রীড়ালেখক সমিতির সভাপতি মোস্তফা মামুন, সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ান উজ জামান রাজিব, অনুষ্ঠান আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান ও সমিতির সাবেক সভাপতি হাসানউল্লাহ খান রানা ও কো চেয়ারম্যান এবং মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক কামরুন্নাহার ডানা।

এই ১৮ মহিলা ক্রীড়াবিদদের সর্বাধিক সাত জনই শুটার। এছাড়া কারাতের ৪, এ্যাথলেটিক্স ও তায়কোয়ান্দোর ২ জন করে, সাঁতার, ভারোত্তোলন ও উশুর ১ জন করে। এদের মধ্যে ব্যক্তিগত সর্বাধিক স্বর্ণপদক জিতেছেন শুটার সাবরিনা সুলতানা। ১৯৯৩ সাফ গেমস থেকে ২০০৯ সাফ গেমস পর্যন্ত তিনি অর্জন করেছেন ৯টি স্বর্ণপদক।

আরেক শুটার শারমিন আক্তার রতœা জিতেছেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩টি স্বর্ণ। স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত তিন ক্রীড়াবিদ এখন রয়েছেন দেশের বাইরে। কারাতের মুন্নী খাতুন সিঙ্গাপুরে, অ্যাথলেট ফৌজিয়া হুদা জুঁই মালয়েশিয়া এবং আরেক শুটার লাভলী চৌধুরী আঁখি রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে।

বাকি স্বর্ণজয়ী কন্যারা হলেন-সাঁতারু মাহফুজা খাতুন শিলা, ভারোত্তোলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত, তায়কোয়ান্দো খেলোয়াড় কারমিন ফারজানা রুমি, শাম্মী আক্তার, কারাতেকা, মুন্নি খানম, জ উ প্রু, উসাইনু মারমা, মরিয়ম খাতুন, উশু খেলোয়াড় ইতি ইসলাম, শুটার কাজী শাহানা পারভীন, সৈয়দা সাদিয়া সুলতানা, তৃপ্তি দত্ত, শারমিন আক্তার ও দৌড়বিদ রহিমা খানম যুঁথি।

Source : jagonews24

Post a Comment