বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না তৃণমূল কংগ্রেসের


প্রথম দফার দ্বিতীয় পর্বের ভোটের আগে ফের নতুন বিতর্কে জড়াল পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। সারদা কাণ্ডে তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জির নাম জড়িয়ে পড়েছিল। সারদার পর নারদা ডটকমের স্টিং অপারেশনে মমতার পরের সারির শীর্ষ নেতাদের ঘুষ নেয়ার ঘটনা প্রকাশ পাওয়ায় আবারো সমালোচনার মুখে পড়েন তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জি ও তার দল।

সারদা এবং নারদার পর উত্তর কলকাতার উড়ালপুল ভেঙে পড়ার পেছনে তৃণমূলের সিন্ডিকেট রাজত্বের চেহারাটাও সামনে চলে আসায় ভোটের মুখে কার্যত বড়সড় ধাক্কা সামলাতে চেষ্টা করে তৃণমূল কংগ্রেস। এবার সেই দলের এক শীর্ষ নেতা সব্যসাচী দত্ত তৃণমূলের সঙ্গে সিন্ডিকেট মাফিয়াদের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। আর সেটিও গত দুদিন সর্বভারতীয় একটি জনপ্রিয় খবরের চ্যানেলে প্রচার হয়েছে।

গত মঙ্গলবার সর্বভারতীয় প্রভাবশালী নিউজ চ্যানেল (টাইমসনাও) কলকাতার অদূরে বিধাননগর পৌরসভার মেয়র এবং স্থানীয় বিধানসভার একজন প্রতিদ্বন্দ্বী সব্যসাচী দত্তের গোপন ইন্টারভিউ চালায়। সেখানে তিনি বলেন, নিউটাউন-রাজারহাটের বিশাল এলাকায় বহুতল ভবন নির্মাণের জন্য ইট বালু সিমেন্ট সরবরাহের সিন্ডিকেট রয়েছে এবার বিধানসভা ভোটে সব্যসাচীর হয়ে তারাই টাকা খরচ করছে।

সব্যসাচী দত্ত আরো বলেন, ২০ হাজার সদস্য এই সিন্ডিকেটের সঙ্গে যুক্ত। এদের যদি সিন্ডিকেট করতে না দেয়া হয় তাবে মা মাটি মানুষের এই সরকারই থাকবে না, পড়ে যাবে। মমতার অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ এবং তৃণমূলের প্রভাবশালী ওই নেতা স্বীকার করেছেন যে ভোটে ৪০ লাখ টাকা যোগান দিচ্ছে ওই সিন্ডিকেট মাফিয়ারাই।

কেননা ভোটের পর বাকি পৌনে পাঁচ বছর তাদের দেখার প্রতিশ্রুতি তিনিই দিতে পারেন এবং রক্ষাও তিনি করবেন। ওই চ্যানেলে প্রচারিত হওয়ার পরই এই খবর নিয়ে তোলপাড় শুরু হয় দিল্লি ও কলকাতাতে নির্বাচন কমিশনের কাছে বিজেপি ওই তৃণমূল নেতার প্রার্থীতা বাতিলের আবেদন করে।

কলকাতায় বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন, তৃণমূল কংগ্রেসের এটাই কালচার। ওরা মানুষের কাছ থেকে চাঁদা নিয়ে রাজনীতির নামে ব্যবসা করছে। মমতা ব্যানার্জি উচিত এখনও এই দায় নিয়ে সরে দাঁড়ানো। যদিও এই নিয়ে সব্যসাচী দত্ত মিডিয়ার সামনে নতুন করে আর প্রতিক্রিয়া জানাননি।

এদিকে মাওবাদী অধ্যুাষিত এলাকাগুলোতে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ শেষ হলেও অধিকাংশ এলাকায় এখন ভোটপরবর্তী রাজনৈতিক সংঘর্ষ শুরু হয়েছে। পশ্চিম-মেদেনীপুরের গড়বেড়া, শালবানি এবং শুনকাতোড় এলাকায় চলছে চোরাগুপ্তা হামলা-পাল্টা হামলা।

স্থানীয় সাংবাদিকরা জানান, ভোটের দিন রাতেই তৃণমূলের বিরুদ্ধে জোট হওয়া সিপিআইএম এবং কংগ্রেসের সমর্থকদের উপর হামলা চালানো হয়। আহতরা জানিয়েছেন, তৃণমূলের সন্ত্রাসীরাই ওই হামলা চালায়। আহতরা জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

সিপিএম নেতা অমিয় পাত্র টেলিফোনে জানান, জঙ্গলমহলের মানুষ তৃণমূলের বিরুদ্ধে রায় দিয়েছেন। সেটা শাসকরা বুঝতে পেরেছে। জঙ্গলমহলে হার নিশ্চিত জেনে তৃণমূল এখন হামলার পথ বেছে নিয়েছে।

দ্বিতীয় দফার ভোট আগামী ১১ এপ্রিল। সেখানে ভোট প্রচারে ব্যস্ত তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জি থেকে বিরোধী দল নেতা সূর্যকান্ত মিশ্র। দ্বিতীয় দফার ভোটা নারায়ণগড় বিধানসভা থেকে সূর্যকান্ত মিশ্রের ভাগ্যও নির্ধারণ হবে। 

Source : jagonews24

Post a Comment