এক্সপোর্ট ইমপোর্ট লাইসেন্স করার নিয়ম কী?


আপনি যদি ঢাকাতে থাকেন তাহলে আপনাকে সিটিকর্পোরেশন থেকে লাইসেন্স ফি জমা দিয়ে ট্রেড লাইসেন্স নিতে হবে। নিদিষ্ট ফি ছাড়াও আপনাকে আপনার ব্যবসার ধরণ অনুযায়ী ফি দিতে হবে যেমন আমদানীকারকের ফি, রপ্তানীকারকের ফি। এভাবে যোগ করে আপনাকে সোনালী ব্যংকের নির্দিষ্ট কয়েকটি শাখায় জমা দিতে হবে এই ব্যাপারে আপনি চাইলে আপনার এলাকার সিটিকর্পোরেশন অফিসের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

নতুন লাইসেন্স ফি ২২৫০ টাকা +সাইবোর্ড কর ৩৭৫ টাকা +নতুন বই ১০০ টাকা+সার চার্জ ৫৬৩+ব্যংক ৫ টাকা+আপনি যদি সরাসরি নিজ দায়িত্বে এইসব লাইসেন্স করতে যান তা হলে আপনাকে অনেক ঝামেলায় পড়তে হবে। আপনি এই বিষয়গুলো মতিঝিলে সিটি সেন্টারের বিপরীতে চা-বোর্ড অফিসের সাথে আলোচনা করে রপ্তানী উন্নয়ন ব্যুরোর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। এখানে আরো উল্লেখ্য যে, আমদানী রপ্তানী ব্যবসা শুরু করার পূর্বে আপনাকে অবশ্যই যে কোন চেম্বারের সদস্য হতে হবে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে এফবিসিসিআই, বাংলাদেশ ইন্ডেন্টিং এসোশিয়েশন ইত্যাদি।


আমদানী নিবন্ধন ফি ১৫,২০০ টাকা (সর্বোচ্চ ১ কোটি টাকা)। প্রতি বছর দিতে হবে ১৭,৭০০ টাকা। রপ্তানী নিবন্ধন ফি ৩,২০০ টাকা। আর আপনি যদি ইনডেন্টিং ব্যবসা করেন তা হলে ইনডেন্টিং নিবন্ধন ফি ২৫,২০০ টাকা দিতে হবে। এসব ফি বাংলাদেশ ব্যাংক বা সোনালী ব্যাংকে নিদিষ্ট একটি চালান ফর্মে দিতে হবে।

-zoombangla

Post a Comment