চার দিনেই জিতল পাকিস্তান


লর্ডসে ২৮৩ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে জেতার ইতিহাস একটিই রয়েছে। রোববার ইংল্যান্ডের সামনে দ্বিতীয়টি গড়ার সুযোগ ছিল। কিন্তু ইয়াসির শাহর ঘূর্ণিতে প্রথম টেস্টের চতুর্থ দিনেই কুপোকাত ইংলিশরা। দ্বিতীয় ইনিংসে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২০৭ রানে থামে তারা। ফলে ৭৫ রানের দারুণ এক জয় পায় পাকিস্তান। এ জয়ের ফলে চার ম্যাচ টেস্ট সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল সফরকারীরা। 

পাকিস্তান তাদের প্রথম ইনিংসে সবকটি উইকেট হারিয়ে সংগ্রহ করে ৩৩৯ রান। জবাবে ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংসে করে ২৭২ রান। পাকিস্তান টেস্টের চতুর্থ দিন রোববার সকালে দ্বিতীয় ইনিংসে ২১৫ রান করে অলআউট হয়ে যায়। তাতে ইংল্যান্ডের সামনে জয়ের লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় ২৮৩ রান। সেই রান তাড়া করতে নেমে ২০৭ রানেই গুটিয়ে যায় ইংলিশরা। ফলে চতুর্থ দিনেই জিতে যায় সফরকারী পাকিস্তান। এর আগে ১৯৯৬ সালে ওয়াকার ইউনুস ও মুস্তাক আহমেদরা লর্ডসে টেস্ট জিতেছিলেন। 

 ২০ বছর পর তাদের উত্তরসূরিরা লর্ডসে টেস্ট জয়ের স্বাদ নিল। পাকিস্তানের এমন জয়ে সবচেয়ে বড় কৃতিত্ব ইয়াসির শাহর। তার ১৩ টেস্টের ক্যারিয়ারে এই প্রথম ১০ উইকেট শিকার করলেন। তাও আবার এশিয়ার প্রথম বোলার হিসেবে লর্ডসে ১০ উইকেট এবং লর্ডসের ১৩২ বছরের ইতিহাসে দ্বিতীয় কোনো লেগ স্পিনার হিসেবে। তার পাশাপাশি কৃতিত্ব দিতে হবে অধিনায়ক মিসবাহ-উল-হককেও। তিনি প্রথম ইনিংসে ব্যাটিং বিপর্যয়ের সময় হাল ধরে ইংল্যান্ডে ও লর্ডসে নিজের প্রথম টেস্টে সেঞ্চুরি হাঁকান। জয়সূচক উইকেট নিয়ে টেস্টটি স্মরণীয় হয়ে থাকল আমিরের জন্য। 

এই মাঠেই ২০১০ সালে ম্যাচ পাতানোর সঙ্গে জড়িয়ে নিষিদ্ধ হন তিনি। নিষেধাজ্ঞা থেকে ফিরে এসে ৬ বছর পর সেই মাঠেই বল হাতে নামেন তিনি। দুই ইনিংসে ৩ উইকেট নিলেও এই টেস্টটি তার জন্য খুবই স্মরণীয় হয়ে থাকবে।অবশ্য ম্যাচসেরা নির্বাচিত হয়েছেন দুই ইনিংসে ১০ উইকেট শিকার করা ইয়াসির শাহ। ২২ জুলাই ম্যানচেস্টারে ইংল্যান্ড ও পাকিস্তানের মধ্যকার দ্বিতীয় টেস্ট শুরু হবে।

সূত্রঃ বাংলাদেশ২৪-৭

Post a Comment