**TRY FREE HUMAN READABLE ARTICLE SPINNER/ARTICLE REWRITER**

দুবাইতে চড়া মূল্যে বিক্রি হচ্ছে উকুন!


দুবাইয়ের স্যালুনগুলোতে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে উকুন থেরাপি। এ থেরাপিতে বন্ধ হবে চুলপড়া। আর এতেই জমজমাট হয়ে উঠেছে উকুন ব্যবসা।

মাথার উকুন মারার জন্য যারা এতদিন পয়সা খরচ করেছেন তাদের জন্য সংবাদটা আফসোসের। কারণ দুবাইতে ধুমছে বিক্রি হচ্ছে উকুন। তাও স্বল্প মূল্যে নয়, এক উকুনের মূল্য ১৪ দিরহাম। বাংলাদেশি টাকায় যার মূল্য ৩০০ টাকার উপরে। তবে এ ব্যবসার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছে মিউনিসিপ্যালটি কর্তৃপক্ষ। করা হয়েছে জরিমানার বিধান।

সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, মাথার উকুন চুল ও শরীর স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারী। ডাক্তাররা জানান, এতে চুল পড়ার সম্ভাবনা থাকে কম। চুল মজবুত থাকে এবং শরীর স্বাস্থ্যবান রাখে। এ খবরের ভিত্তিতেই দুবাইতে উকুনের কদর বেড়েছে। নারীরাও তাদের মাথায় উকুনের যত্ন নিচ্ছেন।

খবরে বলা হয়েছে, উকুনের চাহিদা বাড়ায় দুবাইয়ের সেলুনগুলো উকুন বিক্রির শুরু করেছেন। যাদের মাথায় বেশি উকুন সেগুলো কিনে দিব্যি বিক্রি করছেন অন্য নারীদের কাছে। প্রতিটি উকুন বিক্রি হচ্ছে ১৪ দিরহাম করে। কখনো কখনো সে দাম উঠছে ৬০ দিরহাম পর্যন্ত।

তবে উকুন বিক্রির এই খবর প্রকাশ হওয়ার পর ক্ষেপেছে দুবাইয়ের হেলথ কন্ট্রোল সেকশন। কর্তকর্তারা বলেছেন, উকুন বিক্রির সিদ্ধান্ত অন্যায়। যাকে এ কাজে পাওয়া যাবে জরিমানা করা হবে বলে জানিয়েছেন তারা।

হেলথ কন্ট্রোল বিভাগের প্রধান হাফেজ গালুম বলছেন, এতে বরং ত্বকের রোগগুলো দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে। তিনি আরো বলেন, এ ব্যবস্থা বন্ধে মিউনিসিপ্যালিটি পরিদর্শকরা নিয়মিত সেলুনগুলো পরিদর্শন করবেন। অভিযুক্ত কাউকে পাওয়া গেলে ২ হাজার দিরহাম পর্যন্ত জরিমানা করা হতে পারে।

দুবাইয়ের এক সেলুনের মালিক মারসেল বলেন, কিছু কাস্টমার এ ব্যবস্থায় উপকার পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন। তবে উকুন বিক্রির বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেন।

-লেটেস্টবিডিনিউজ

Post a Comment