স্মার্টকার্ডের জন্য লাগবে ১০ আঙ্গুলের ছাপ ও চোখের মণির ছবি


শাহীন রহমান ॥ জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) তথ্যভা-ারে নাগরিকের যাবতীয় তথ্য সুরক্ষিত রাখতে এবার ১০ আঙ্গুলের ছাপ নেয়া হবে। পাশাপাশি চোখের মণির ছবি দিতে হবে জাতীয় পরিচয়পত্রধারী নাগরিকদের। জানা গেছে, নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে লেমিনেটিং করা জাতীয় পরিচয়পত্রের বদলে উন্নতমানের স্মার্টকার্ড দেয়ার প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। স্মার্টকার্ড প্রদানের সময় তাদের কাছ থেকে ১০ আঙ্গুলের ছাপ নেয়া হবে। পাশাপাশি চোখের মণির ছবিও নেয়া হবে। এ সময় যাদের হাতে লেমিনেটিং করা জাতীয় পরিচয়পত্র রয়েছে তা ফেরত দিয়ে স্মার্টকার্ড নিতে হবে বলে ইসি সূত্রে জানা গেছে।

ইসির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, স্মার্টকার্ডের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। আগামী মাসেই তা বিতরণ করা হতে পারে। ঈদের আগে শুরু হবে নাকি পরে শুরু হবে সে বিষয়ে এখনও কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে স্মার্টকার্ড বিতরণে প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের অপেক্ষায় রয়েছে ইসি। জানা গেছে, আগামী মাসের যে কোন সময় প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর স্মার্টকার্ড বিতরণ শুরু হবে।

বর্তমানে এনআইডির তথ্যভা-ারে একজন পরিচয়পত্রধারী নাগরিকের মাত্র চার আঙ্গুলের ছাপ সংরক্ষিত আছে। এর মধ্যে দু’হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলের ছাপ ও তর্জনী আঙ্গুলের ছাপ সংরক্ষিত আছে। কিন্তু স্মার্টকার্ড প্রদানের সঙ্গে সঙ্গে একজন নাগরিকের তথ্য যাতে সুরক্ষিত থাকে, অন্য কেউ যাতে এসব তথ্য নকল করতে না পারে, এজন্য নতুন করে ১০ আঙ্গুলের ছাপ নেয়া হবে। পাশাপাশি চোখের মণির ছবি এনআইডির তথ্যভা-ারে সংরক্ষিত থাকবে। স্মার্টকার্ড বিতরণ প্রক্রিয়ার সঙ্গে আঙ্গুলের ছাপ নেয়ার প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে ইসি। ১০ আঙ্গুলের ছাপ নেয়ার মেশিন এবং চোখের আইরিশের প্রতিচ্ছবি নেয়ার মেশিন বিভিন্ন থানা নির্বাচন কার্যালয়ে সরবরাহ করা হয়েছে। এছাড়া ঢাকার বাইরেও বিভিন্ন উপজেলায় এসব মেশিন পাঠানো হয়েছে বলে ইসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

তবে তারা জানান, স্মার্টকার্ড বিতরণে সময় নির্ধারিত না হলেও ইতোমধ্যে কিভাবে এটি বিতরণ করা হবে তা নির্ধারণ করা হয়েছে। এ কার্ড বিতরণের জন্য সিটি কর্পোরেশন এলাকা, জেলা, উপজেলা ও পৌরসভা এলাকায় আলাদা ক্যাম্প করে স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হবে। এজন্য সিটি কর্পোরেশন এলাকায় প্রতিটি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর অফিসে ক্যাম্প স্থাপন করা হবে। যাদের হাতে লেমিনেটিং করা জাতীয় পরিচয়পত্র রয়েছে স্মার্টকার্ড নেয়ার সময় তা ফেরত দিতে হবে।

আর যারা ভোটার হয়েছেন অথবা যাদের নাম জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগে নিবন্ধন হয়েছে অথচ এখনও কার্ড পাননি তাদের নতুন কোন লেমিনেটিং কার্ড দেয়া হবে না। তারা একবারেই স্মার্টকার্ড পাচ্ছেন। স্মার্টকার্ডের কথা মাথায় রেখেই গত দু’বছরে যাদের ভোটার তালিকায় অন্তর্র্ভুক্ত করা হয়েছে তাদের পরিচয়পত্র এখনও দেয়া হয়নি। ইসি সূত্রে জানা গেছে, সেপ্টেম্বর থেকে স্মার্টকার্ড প্রদান শুরু হলে ডিসেম্বর নাগাদ সবার হাতে পৌঁছে যাবে এ স্মার্টকার্ড।

জানা গেছে, ইসির পরিকল্পনা অনুযায়ী প্রথমে রাজধানীবাসীদের মাঝে বিতরণ করা হবে এ কার্ড। এর পর সিটি কর্পোরেশন, জেলা-উপজেলা, পৌরসভা ও সবশেষে ইউনিয়ন পর্যায়ে স্মার্টকার্ড বিতরণ করা হবে। রাজধানীতে বিতরণ সম্পন্ন করার পর অন্যান্য সিটি কর্পোরেশন এলাকায় বিতরণের কাজ শুরু হবে। এর পর জেলা-উপজেলায়ও পর্যায়ক্রমে ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় ক্যাম্প করে গ্রাম এলাকায় স্মার্টকার্ড বিতরণ সম্পন্ন করা হবে।

এ বিষয়ে ইসি সচিব মোঃ সিরাজুল ইসলাম বলেন, রাজধানী ও প্রত্যন্ত একটি এলাকায় স্মার্টকার্ড বিতরণের কাজ শুরু হবে। ঢাকার নাগরিকদের প্রায় অর্ধকোটি পরিচয়পত্র প্রস্তুত রয়েছে। তিনি বলেন, সেপ্টেম্বরেই স্মার্টকার্ড বিতরণ করার প্রস্তুতি রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের সময়সূচী পেলেই বিতরণের কার্যক্রম জানিয়ে দেয়া হবে। দিন-তারিখ চূড়ান্তের জন্য একটু অপেক্ষা করতে হবে।

ইসি সূত্রে জানা গেছে, নাগরিকদের হাতে স্মার্টকার্ড বিতরণের কার্যক্রম নিয়ে নির্বাচন কমিশনের সভায় বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। বিশেষ করে কর্মপরিকল্পনার সার্বিক বিষয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সভাপতিত্বে কমিশনের এক সভায় আলোচনা হয়েছে। ইসি কর্মকর্তারা বলছেন, স্মার্টকার্ড বিতরণ পরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হলেও প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনসূচীর ওপরই বিতরণের সময়সূচী নির্ধারণ করা হবে।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, স্মার্টকার্ডের মাধ্যমে ২৫ ধরনের নাগরিক সেবা পাওয়া যাবে। এর মধ্যে রয়েছে- আয়কর শনাক্তকরণ নম্বর, ড্রাইভিং লাইসেন্স, পাসপোর্ট, চাকরির আবেদন, সম্পত্তি ক্রয়-বিক্রয়, ব্যাংক হিসাব খোলা ও ঋণপ্রাপ্তি, সরকারী ভাতা উত্তোলন, ভর্তুকি, সাহায্য ও সহায়তাপ্রাপ্তি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি, বিমানবন্দরে আগমন-বহির্গমন সুবিধা, শেয়ার আবেদন ও বিও এ্যাকাউন্ট খোলা, ট্রেড লাইসেন্সপ্রাপ্তি, যানবাহন রেজিস্ট্রেশন, বিবাহ-তালাক রেজিস্ট্রেশন, পরিষেবার সংযোগ, ই-টিকেটিং প্রভৃতি সেবা পাওয়া যাবে। স্মার্টকার্ডে তিন স্তরে ২৫টি নিরপত্তা বৈশিষ্ট্য রয়েছে।

তবে ইসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, যারা জাতীয় পরিচয়পত্রে নাম-ঠিকনা ও তথ্যউপাত্ত সংশোধনের জন্য আবেদন করেছেন তাদের ক্ষেত্রে স্মার্টকার্ড প্রদানে সমস্যা হবে না। নির্বাচন কমিশনের তথ্য অনুযায়ী দেশের প্রায় ১০ কোটি ভোটারের মধ্যে নয় কোটি ভোটারের হাতে লেমিনেটেড এনআইডি রয়েছে। বিভিন্ন নাগরিক সুবিধা পেতে এ জাতীয় পরিচয়পত্রের অনুলিপি জমা দেয়ার বাধ্যবাধকতাও রয়েছে। স্মার্টকার্ড নেয়ার সময় এসব লেমিনেটিং কার্ড ফেরত দিতে হবে।

-জনকন্ঠ

Post a Comment