এই চার পয়েন্টে মাসাজ করলে ওজন কমবে


ওজন কমাতে কত কী না করেন! মেপে খাওয়া, তাড়াতাড়ি ঘুম, সকালে উঠে জিমে গা ঘামানো— অনেক কিছু। অনেক সময় তো আধপেটা খেয়ে খেয়ে থাকেন। তবুও পেট বাবাজি ন যযৌ, ন তস্থৌ। অনেক কিছুই তো করলেন, এটা ট্রাই করে দেখুন ফল পাবেন।

আমাদের শরীরে বিশেষ কিছু পয়েন্ট রয়েছে যা হাল্কা মাসাজ করলে বিশেষ কিছু পরিবর্তন হয়। শুধুমাত্র খাওয়া কমিয়ে বা ব্যায়াম করেই ওজন কমানো যায় না। ওজন কমানোর জন্য আমাদের মেটাবলিজম ভীষণ জরুরি একটি বিষয়। এর তারতম্যের জন্য খুব সহজেই ওজন কমে বা বেড়ে যায়। যার মেটাবলিজম যত ভালো, তিনি ততটাই স্লিম-ট্রিম থাকতে পারেন। শরীরের এই ৪টি প্রেসার পয়েন্টে নিয়মিত মাসাজ করলে মেটাবলিজম বাড়ে থাকে এবং ফ্যাট জমা হওয়ার হাত থেকে শরীরকে বাঁচায়।

দেখে নিন কীভাবে করতে হবে মাসাজ।

১) নাক এবং মুখের ঠিক মাঝে: নাক এবং মুখের মাঝ বরাবর ঠোঁটের উপরিভাগে মাসাজ করলে খিদে নিয়ন্ত্রণে থাকে এবং উদ্বেগ কমায়। ফলে বেশি খেয়ে ফেলার প্রবণতা কমে যায়। দিনে ২ বার ৫ মিনিট করে হাল্কা মাসাজ করুন।

২) হাত: ছবিতে দেখানো পয়েন্টে মাসাজ করলে শরীরে অতিরিক্ত উত্তাপ বার করে দেয় এবং পরিপাক তন্ত্র ভালো করে। এই পয়েন্টটি শরীরে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট। এই পয়েন্ট থেকে শরীরে এনার্জি পাস করে। দিন ২-৩ বার এক মিনিট করে হাল্কা মাসাজ করুন। দ্রুত উপকার পাবেন।

৩) হাঁটুর নীচে: চীনা আকুপাঙ্কচার মতে এই পয়েন্টের নাম জু সান লি। শরীরে নানা রোগ সারাতে এই পয়েন্টে আকুপ্রেসারের মাধ্যমে চিকিত্সা এ করা হয়ে থাকে। হজমশক্তি বাড়ানোর জন্য ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ একটি পয়েন্ট। শরীরে যদি কোথাও ব্যাথাযুক্ত ফোলা ভাব থাকে সেটাও কমাতে সাহায্য করে। এই পয়েন্টকে ডাক্তারি ভাষায় বলা হয় 'দ্য পয়েন্ট অফ হান্ড্রেড ডিজিজেস'। অতিরিক্ত ওজনের সমস্যা যাঁরা ভুগছেন তাঁরা নিয়মিত এই পয়েন্টে মাসাজ করলে সপ্তাহে এক পাউন্ড করে ওজন কমাতে পারেন। এই পয়েন্টটিও সহজেই খুঁজে বার করতে পারবেন। নিজের বাঁ হাঁটুর ওপর ডান হাতের আঙুলগুলো রাখুন। অনামিকা এবং কড়ে আঙুলের ঠিক মাঝে এই পয়েন্ট পাবেন। হাঁটু এবং পায়ের মাঝে একটু ঠালা মতো একটা অংশ আছে সেটাই এই পয়েন্ট। দিনে ১০ মিনিট করে দুই হাঁটুর নীচে ক্লক-ওয়াইজ ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে মাসাজ করুন। যদি মাসাজের সময় সামান্য একটু ব্যাথা হয় ভয় পাবেন না। জানবেন আপনি একদম ঠিক মতো মাসাজ করতে পারছেন।

৪) কান: কানের এই পয়েন্টে মাসাজ করলে মেটাবলিজম দ্রুত হারে বাড়ে। তাই আপনি খুব সহজেই অতিরিক্ত ওজন কমাতে পারবেন। বুড়ো আঙুল দিয়ে হাল্কা চাপ দিয়ে ক্রমাগত তিন মিনিট ধরে মাসাজ করুন দিনে ৩ বার।

সূত্র: এই সময়

ওজন কমাতে কত কী না করেন! মেপে খাওয়া, তাড়াতাড়ি ঘুম, সকালে উঠে জিমে গা ঘামানো— অনেক কিছু। অনেক সময় তো আধপেটা খেয়ে খেয়ে থাকেন। তবুও পেট বাবাজি ন যযৌ, ন তস্থৌ। অনেক কিছুই তো করলেন, এটা ট্রাই করে দেখুন ফল পাবেন।
আমাদের শরীরে বিশেষ কিছু পয়েন্ট রয়েছে যা হাল্কা মাসাজ করলে বিশেষ কিছু পরিবর্তন হয়। শুধুমাত্র খাওয়া কমিয়ে বা ব্যায়াম করেই ওজন কমানো যায় না। ওজন কমানোর জন্য আমাদের মেটাবলিজম ভীষণ জরুরি একটি বিষয়। এর তারতম্যের জন্য খুব সহজেই ওজন কমে বা বেড়ে যায়। যার মেটাবলিজম যত ভালো, তিনি ততটাই স্লিম-ট্রিম থাকতে পারেন। শরীরের এই ৪টি প্রেসার পয়েন্টে নিয়মিত মাসাজ করলে মেটাবলিজম বাড়ে থাকে এবং ফ্যাট জমা হওয়ার হাত থেকে শরীরকে বাঁচায়।
দেখে নিন কীভাবে করতে হবে মাসাজ।
১) নাক এবং মুখের ঠিক মাঝে: নাক এবং মুখের মাঝ বরাবর ঠোঁটের উপরিভাগে মাসাজ করলে খিদে নিয়ন্ত্রণে থাকে এবং উদ্বেগ কমায়। ফলে বেশি খেয়ে ফেলার প্রবণতা কমে যায়। দিনে ২ বার ৫ মিনিট করে হাল্কা মাসাজ করুন।
২) হাত: ছবিতে দেখানো পয়েন্টে মাসাজ করলে শরীরে অতিরিক্ত উত্তাপ বার করে দেয় এবং পরিপাক তন্ত্র ভালো করে। এই পয়েন্টটি শরীরে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট। এই পয়েন্ট থেকে শরীরে এনার্জি পাস করে। দিন ২-৩ বার এক মিনিট করে হাল্কা মাসাজ করুন। দ্রুত উপকার পাবেন।
৩) হাঁটুর নীচে: চীনা আকুপাঙ্কচার মতে এই পয়েন্টের নাম জু সান লি। শরীরে নানা রোগ সারাতে এই পয়েন্টে আকুপ্রেসারের মাধ্যমে চিকিত্সা এ করা হয়ে থাকে। হজমশক্তি বাড়ানোর জন্য ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ একটি পয়েন্ট। শরীরে যদি কোথাও ব্যাথাযুক্ত ফোলা ভাব থাকে সেটাও কমাতে সাহায্য করে। এই পয়েন্টকে ডাক্তারি ভাষায় বলা হয় 'দ্য পয়েন্ট অফ হান্ড্রেড ডিজিজেস'। অতিরিক্ত ওজনের সমস্যা যাঁরা ভুগছেন তাঁরা নিয়মিত এই পয়েন্টে মাসাজ করলে সপ্তাহে এক পাউন্ড করে ওজন কমাতে পারেন। এই পয়েন্টটিও সহজেই খুঁজে বার করতে পারবেন। নিজের বাঁ হাঁটুর ওপর ডান হাতের আঙুলগুলো রাখুন। অনামিকা এবং কড়ে আঙুলের ঠিক মাঝে এই পয়েন্ট পাবেন। হাঁটু এবং পায়ের মাঝে একটু ঠালা মতো একটা অংশ আছে সেটাই এই পয়েন্ট। দিনে ১০ মিনিট করে দুই হাঁটুর নীচে ক্লক-ওয়াইজ ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে মাসাজ করুন। যদি মাসাজের সময় সামান্য একটু ব্যাথা হয় ভয় পাবেন না। জানবেন আপনি একদম ঠিক মতো মাসাজ করতে পারছেন।
৪) কান: কানের এই পয়েন্টে মাসাজ করলে মেটাবলিজম দ্রুত হারে বাড়ে। তাই আপনি খুব সহজেই অতিরিক্ত ওজন কমাতে পারবেন। বুড়ো আঙুল দিয়ে হাল্কা চাপ দিয়ে ক্রমাগত তিন মিনিট ধরে মাসাজ করুন দিনে ৩ বার।
সূত্র: এই সময়
- See more at: http://www.kalerkantho.com/online/lifestyle/2016/08/08/390895#sthash.58WSfZNJ.dpuf

Post a Comment